রক্তাক্ত নাইজেরিয়া, দুষ্কৃতীদের হামলায় নিহত ৫০!

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলের একটি গ্রামে একদল বন্দুকবাজের হামলায় অসংখ্য মানুষের মৃত্যু হয়েছে । নারী ও শিশুসহ অপহৃত আরও অনেকে, দাবি স্থানীয়দের ।

প্রেসিডেন্ট বোলা টিনুবু

প্রেসিডেন্ট বোলা টিনুবু ক্ষমতায় আসার আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ভোটে জিতলে তিনি দেশের মানুষ যে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন, সেই পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটবে । কিন্তু তিনি ক্ষমতায় আসার এক বছরের মধ্যেই উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে সশস্ত্র দুষ্কৃতী দলের হামলা, ডাকাতির ঘটনা কিন্তু বন্ধ হয়নি । উপরন্তু বেড়েই চলেছে । আইনশৃঙ্খলাবাহিনী তাদের থামাতে পারছে না বলেই অভিযোগ বাসিন্দাদের ।

ইয়ারগোজ গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা হাসান ইয়াউ জানান, রবিবার গভীর রাতে মোটরসাইকেলে চড়ে আসা প্রায এক ডজন সশস্ত্র দুষ্কৃতী, কাতসিনা রাজ্যের কানকারা এলাকার ইয়ারগোজে নির্বিচারে হামলা চালায় । সংবাদ সংস্থাকে ইয়াউ বলেন, “তারা মানুষজনকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে থাকে এবং আমার ছোট ভাই সহ গ্রামের অসংখ্য মানুষকে খুন করে । সেই সঙ্গে, আরও অনেক গ্রামবাসীকে অপহরণ করা হয়েছে এবং সম্পত্তি লুঠ করা হয়েছে’ ।

অপর এক স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল্লাহি ইউনুসা কঙ্কারা বলেন, তিনি অল্পের জন্য হামলা থেকে রক্ষা পেয়েছেন । হামলাটি সোমবার ভোর পর্যন্ত চলেছিল । তাঁরা কোনও প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারেননি । সংবাদসংস্থাকে তিনি বলেন, “আমাদের শহর মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে । গ্রামের প্রায় প্রতিটি বাড়িরই কেউ না কেউ দুষ্কৃতী হামলার শিকার’ । সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘কতজনকে অপহরণ করা হয়েছে, সেটা জানার জন্য, আমরা গ্রামের মানুষের সংখ্যা গুনছি । তবে এখনও মৃতদেহ উদ্ধার হয়েই চলেছে’ ।

কাতসিনা পুলিশ কর্তৃপক্ষ অবশ্য এই হামলা নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি ।
নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলে হামলা এবং মক্তিপণের জন্য অপহরণের ঘটনা হামেশাই ঘটে । তাছাড়া, সেদেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চলে ১৫ বছর ধরে চলা মুসলিম ধর্মালম্বিদের ক্ষোভ-বিক্ষোভ , বিদ্রোহ এবং কৃষক ও পশুপালকদের মধ্যে মাঝেমধ্যেই সংঘর্ষ হয় । মানুষের মৃত্যও ঘটে । সব ক্ষেত্রেই পুলিস যেন নীরব দর্শক, অভিযোগ বাসিন্দাদের ।

নিউজ টাইম চ্যানেলের খবরটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।
Inform others ?
Share On Youtube
Show Buttons
Share On Youtube
Hide Buttons
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
Facebook
YouTube