EU নির্বাচনে এগিয়ে কট্টরপন্থিরা, ফ্রান্সে আগাম নির্বাচনের ডাক

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের পার্লামেন্ট নির্বাচনে এগিয়ে কট্টরপন্থিরা । আর এতেই হতাশ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাক্রোঁ । তড়িঘড়ি তিনি দেশে আগাম পার্লামেন্ট নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন । ফলে চরম অনিশ্চয়তার মুখে ইউরোপের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ।

রবিবারের নির্বাচনে ৭২০ আসনের ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে মধ্যপন্থি, উদারপন্থি এবং সমাজতান্ত্রিক দলগুলো সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখলেও, এই ভোট নিজের দেশে ফ্রান্স ও জার্মানির নেতাদের কাছে বড় ধাক্কা বলে মনে করা হচ্ছে । কারণ এই ফলাফলের জেরে, ইউরোপিয় ইউনিয়নের (EU) প্রধান শক্তিশালী ব্লকটির নীতি কীভাবে পরিচালিত হবে, তাই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ।

সংবাদ সংস্থার দাবি, নিজের কর্তৃত্ব পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টায়, ঝুঁকি নিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁ নিজের দেশে পার্লামেন্ট নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন । যার প্রথম দফা ভোট গ্রহণ ৩০ জুন । সংবাদ সংস্থার আরও দাবি, মাক্রোঁর মতো জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শলজও রবিবার রাত থেকে মানসিক ভাবে ভীষণই ভেঙে পড়েন । কারণ তার সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটসরা ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট নির্বাচনে এ পর্যন্ত সবচেয়ে খারাপ ফল করেছে । জার্মানির মূল ধারার রক্ষণশীল ও চরম দক্রিণপন্থী দল আলটারনেটিভ ফর জার্মানির (AFD) কাছে ধরাশায়ী হয়েছে তারা ।

এদিকে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির অবস্থান আরও দৃঢ় হয়েছে । তাঁর চরম রক্ষণশীল দল ব্রাদার্স অব ইতালি অধিকাংশ ভোট পাচ্ছে । ভোটের পরবর্তী সমীক্ষাতেও তেমনই ইঙ্গিত মিলেছিল । ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ভেতরে দক্ষিণপন্থীদের অবস্থান জোরালো হলে, নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব অথবা চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শিল্প ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা নিয়ে নতুন আইন পাস করা কঠিন হয়ে উঠতে পারে ।

তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ক্ষমতা বৃদ্ধির য়ারা বিরোধী, সেই জাতীয়তাবাদী দলগুলো এবারের নির্বাচনে পরে কতটা সক্রিয় হয়ে উঠতে পারবে, সেটা তাদের নিজেদের মতোবিরোধ ঘুচিয়ে, একসঙ্গে কাজ করার সামর্থ্যের ওপর নির্ভর করছে । বর্তমানে তারা পৃথক দু’টি রাজনৈতিক পরিবারের মধ্যে বিভক্ত হয়ে আছে । আর কিছু দল ও একটি নিরপেক্ষ ব্লকে অবস্থান করছে ।

নতুন পার্লামেন্টে মধ্য-দক্ষিণপন্থি ইউরোপিয়ান পিপলস পার্টি (EPP) সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক পরিবার হতে যাচ্ছে বলে ভোট পরবর্তী সমীক্ষায় দেখা গেছে । ইউরোপিয়ান কমিশনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়ন ইপিপি-র সদস্য । জাতীয়তাবাদী দলগুলোর আরেকটি পরিবার হল ইউরোপিয়ান কনজারভেটিভ এন্ড রিফরমিস্টস পার্টি (ECRP) । ইতালির মেলোনির ব্রাদার্স অব ইতালি এই পরিবার ভুক্ত । ফলে ইউরোপিয় ইউনিযনের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঠিক কোন দিকে এগোচ্ছে, সেদিকেই নজর গোটা বিশ্বের ।

নিউজ টাইম চ্যানেলের খবরটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।
Inform others ?
Share On Youtube
Show Buttons
Share On Youtube
Hide Buttons
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
Facebook
YouTube