শহর কলকাতায় খুন, প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য!

রবিবার রাতে খাস কলকাতায় আবারও প্রকাশ্যে এল খুনের ঘটনা । জানা যায়, মদ্যপানের জন্য জল না দেওয়ায় ফুলবাগান থানা সংলগ্ন এলাকায় এক যুবককে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ ওঠে । এদিনের ঘটনায় জানা যায়, KMC-এর কোয়ার্টারের ছাদে এক যুবককে খুন করা হয় । নিহত যুবকের নাম নীতিশ রবি দাস । তাঁর বয়স হয়েছিল ১৮ বছর । খুনের ঘটনায় ফুলবাগান থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতের পরিবারের সদস্যরা ।

এদিনের ঘটনায় সূত্রের দাবি, ১৮ বছরের ওই যুবক মদ্যপানের জন্য জল চায় । তা না দেওয়ায় সঙ্গীদের সঙ্গে বচসা বাঁধে তাঁর । আর এই বচসার জেরে কুপিয়ে খুন করা হয় তাঁকে । ঘটনায় গোটা এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় । খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয় ৩০ বছরের আকাশ হরির নামে ।

সূত্রের থেকে পাওয়া আরও কিছু তথ্য অনুযায়ী জানা যায়, অভিযুক্ত যুবক গতকাল রাতে ছাদে এসে নীতিশের জলের বোতল মাটিতে ফেলে দেয় । এরপর নীতিশ বারবার জলের বোতলটা চায় । কিন্তু জলের বোতল দিতে চাইনি অভিযুক্ত । এরপরই অভিযুক্ত নীতিশের বুকের বাঁ দিকে একটি গাঁজা কাটার ছুরি দিয়ে আঘাত করেন । রক্তাক্ত অবস্থায় নীতিশকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় এনআরএস হাসপাতালে । সেখানে চিকিৎসকরা নীতিশকে মৃত বলে ঘোষণা করেন ।

গোটা ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে ফুলবাগান থানার পুলিশ । আগে থেকেই তাদের মধ্যে কোন পুরনো শত্রুতা ছিল কি না সেটাও খতিয়ে দেখছেন ফুলবাগান থানার পুলিশ । ইতিমধ্যেই নীতিশের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় । পুলিশ তদন্তে জানতে পারে মৃত যুবক, কাঁকুড়গাছির কাছে একটি ড্রাই ফ্রুটের দোকানে কাজ করত । অন্যদিকে অভিযুক্ত ব্যক্তি বেকার ছিল । মৃত যুবক ও অভিযুক্ত ব্যক্তির দু’জনেরই বাবা কেএমসিতে ঝাড়ুদারের কাজ করত ।

অন্যদিকে এই ঘটনায় উঠে আসে চাঞ্চল্যকর এক তথ্য । জানা যায়, প্রায় দিনই মদ-গাজার আসর বসত এই কর্পোরেশন বিল্ডিংয়ে । পুলিশ সহ স্থানীয় কাউন্সিলরকে জানিয়েও মেলেনি কোন সুরাহা । ঘটনার জেরে আতঙ্কে রয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা । কর্পোরেশনের বিল্ডিংয়ে কিভাবে এমন মদ গাঁজার আসর বসত, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন । একই সঙ্গে প্রশ্ন ওঠে, প্রশাসনকে জানিয়েও কেন কোন ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হয়নি ।

পাশাপাশি, ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, পাপিয়া ঘোষ জানান, ‘ওই কর্পোরেশন বিল্ডিংয়ে মদ গাঁজার আসর বসায় বিজেপির কিছু ছেলেরা । বহুবার আমরা ওই বিল্ডিংয়ে গিয়েছি, তবে স্থানীয়রা আমাদেরকে কোনভাবেই সহযোগিতা করেন না । আমরা স্থানীয়দের বলেছিলাম,এই রকম মদ গাজার আসর বসলে আমাদেরকে যেন জানানো হয় । তবে এ বিষয়ে স্থানীয়দের কাছ থেকে কোনদিনই কোনরকম সাহায্য আমরা পায়নি । পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট সতর্ক; যেখানে এমন ধরনের খবর পাওয়া যায় ব্যবস্থা নেওয়া হয় । তবে এক্ষেত্রেও ব্যবস্থা নেওয়ার আমরা চেষ্টা করেছিলাম ।

একই সঙ্গে তাঁর আরও অভিযোগ, নির্বাচনের আগে বিজেপির কিছু সমর্থকরা এমন ধরণের ঘটনা ঘটায় ।

নিউজ টাইম চ্যানেলের খবরটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।
Inform others ?
Share On Youtube
Show Buttons
Share On Youtube
Hide Buttons
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
Facebook
YouTube