বাতিল উচ্চমাধ্যমিক? কি হবে এরপর ?

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় শুক্রবার জানান যে উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলি বাতিল করা হল পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে। এখনও করোনা কেসের সংখ্যা দ্রুত হারে বাড়ছে। সেই সময় ঝুঁকি নিতে চাইছে না রাজ্য। 

বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান পার্থবাবু। তিনি বলেন যে পরীক্ষা ২, ৬ ও ৮ জুলাই করতে চেয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে তাদের কাছে কোনও বিকল্প ছিল না, বলেই জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। 

তিনি বলেন যে বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশ ও সিবিএসই মামলায় কেন্দ্র সুপ্রিম কোর্টে যা বলেছে, এই দুটি জিনিসকে মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। 

কীভাবে বাতিল পরীক্ষাগুলির জন্য নম্বর দেওয়া হবে, সেটা শীঘ্রই দেওয়া হবে বলে জানান পার্থবাবু। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করা হবে বলে তিনি জানান। 

কেন্দ্র সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছিল যে তারা সিবিএসই দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

তিনি বলেন যে বাতিল পেপারগুলির মূল্যায়ন নীতি নিয়ে কোনও ছাত্র-ছাত্রীর সমস্যা থাকলে, তাঁরা উচ্চমাধ্যমিক কাউন্সিলকে চিঠি লিখতে পারে। করোনা পরিস্থিতি একটু শুধরোলে তখন আবার ওই পেপারগুলির পরীক্ষার আয়োজন করতে পারে কাউন্সিল। 

পার্থবাবু বলেন যে বিগত কিছুদিন ধরে তিনি, মুখ্যমন্ত্রী ও এইচএস কাউন্সিল প্রেসিডেন্টের কাছে হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী ফোন করছেন, এটা জানতে যে পরীক্ষার কি হবে। তারা কিছুটা এখন স্বস্তি পাবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। 

করোনার জেরে মার্চ ২৩, ২৫ ও ২৭ তারিখের পরীক্ষাগুলি নিতে পারেনি কাউন্সিল। এগুলি হল এডুকেশন, ফিজিক্স, নিউট্রিশন, অ্যাকাউন্টেন্সি, সংস্কৃত, কেমিস্ট্রি, ইকনমিক্স, মাস কমিউনিকেশন, পার্সিয়ান, আরবিক, ফ্রেঞ্চ, স্ট্যাটিসটিক্স, কস্টিং অ্যান্ড ট্যাক্সেশন, হোম ম্যানেজমেন্ট ও ফ্যামিলি রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট। 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons