‘হিতৈষী হয়েও মুসলমান শ্রমিকদের ফেরাচ্ছেননা মমতা’, তোপ দিলীপের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা আবহের মধ্যে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে একাধিকবার সরব হতে শোনা গিয়েছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলাপ ঘোষকে। এবার আরও একবার সাম্প্রদায়িকতার রাজনীতি করার অভিযোগে মমতা বন্দোপাধ্যায়কে আক্রমণ শানালেন দিলাপ ঘোষ। এদিন বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, “রাজ্যে কাজ না থাকার কারনে মুর্শিদাবাদ, মালদহের মুসলমান সম্প্রদায়ের যুবকেরা পেটের দায়ে ভিনরাজ্যে ছুটে গিয়েছেন। যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুসলিম সমাজের এত হিতৈষী। তিনি তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে ওই সম্প্রদায়ের পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর কেন উদ্যোগ নিচ্ছেন না? তাঁদেরকে শুধু ভোট ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করেছেন। মুসলিম সমাজ এটা বোঝা দরকার।”

এর আগে করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যে রেশন, চিকিৎসাব্যবস্থা এবং আরও বেশ কিছু বিষয়ে মুখ খোলেন দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার ফের সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানো প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধলেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন, “৮ মে মহারাষ্ট্র সরকারকে মুখ্যমন্ত্রী চিঠি লিখেছিলেন যে এই রাজ্যের শ্রমিকদের ফেরানো হোক। সেই অনুযায়ী এখন তাঁদের ফেরানো হচ্ছে। এখন আপনারা আটকাচ্ছেন?” রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঠিকভাবে টেস্ট করাও হচ্ছেনা বলেও এদিন দাবি করেন দিলীপ। পাশাপাশি সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে খাবার ও জলের পরিষেবা ঠিকমতো নেই বলেও অভিযোগ তোলেন তিনি। ইতিমধ্য়েই করোনা পজেটিভ হয়েছে দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুর। আর এই ঘটনার জন্য রাজ্যের উদাসীনতাকেই দায়ী করেছেন তিনি। 

আমফাব বিধ্বস্ত এলাকায় ত্রান বিলি করতে গিয়ে গড়িয়ার কাছে দিলীপ ঘোষের গাড়ি আটকে দেয় পুলিশ। এরপর শুক্রবার সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয় সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের সাথে। এবিষয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়ে দিলাপ বলেন, “আমাদের আটকে দেওয়া হলেও কর্মীরা ত্রাণ বিলি করছে। সুতরাং আমাদের আটকানোর বিষয়টা পুরোটাই রাজনীতি। ওনাদের সাংসদ, বিধায়ক, মন্ত্রীরা যাচ্ছেন। আমরা গেলেই দোষ?”

 

 

 

Inform others ?

হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে গেছে !

Show Buttons
Hide Buttons