রাজ্যের করোনা পরিসংখ্যান নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য দ্বিমত

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা যুদ্ধে সামিল এক পুলিশ কনস্টেবলের আক্রান্ত হল রাজ্যে। বুধবারই তাঁর রক্তের নমুনায় মিলেছে করোনাভাইরাস, খবর পিটিআই সূত্রে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক এমনটাই জানিয়েছে। এদিকে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে জানানো হয়েছে রাজ্যে নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ জন। কিন্তু এ রাজ্যের করোনা পরিসংখ্যান নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য মতপার্থক্য সামনে আসছে।

প্রসঙ্গত, এ রাজ্যে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৫ জন। তবে রাজ্যেজুড়ে এখনও করোনার ঝড় চলছেই। বুধবার বাংলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১২০ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৩২, জানাচ্ছে নবান্ন। তবে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে রাজ্য-কেন্দ্র মত বিরোধ চলছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য এবং পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক থেকে বলা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ১৭৬। কিন্তু রাজ্যের তরফে সেই তথ্য অস্বীকার করে বলা হয়েছে যে ৪২ জন রোগীকে ইতিমধ্যেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে হাসপাতাল থেকে। যদিও কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে সেই সংখ্যা ৩৭।

তবে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে বারবারই বিরোধীদের কটাক্ষের মুখে পড়তে হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকারকে। সিপিআইএম-এর মুখপত্রে জানান হয়েছে  রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৩০। কিন্তু মমতা সরকারের বিবৃতি বলছে সেই সংখ্যা ৭। এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন,সংবাদ শিরোনামে আসতেই এই সব সংখ্যা বলা হচ্ছে বিরোধীদের তরফে। এরকম ভুল তথ্য প্রচার নিয়ে তিনি সকলকে সতর্ক করেন। সুপ্রিম কোর্টের আদেশ রয়েছে। সুতরাং প্রয়োজনে আইনানুগ ব্যবস্থাও নিতে পারেন।

এদিকে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, আক্রান্ত কনস্টেবল বেশ কিছুদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। তাঁর লালারস পরীক্ষার পর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এই মুহুর্তে তাঁর বাড়ির সকলকেই ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ রাখা হয়েছে এবং তাঁদেরও করোনা পরীক্ষা করা হবে।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons