কাজের চাপে ফিরতে পারেননি বাড়ি, করেনা আক্রান্তের গুজবে একঘরে পরিবার

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা আতঙ্কে কাঁপছে গোটা দেশ। ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৬০। এরইমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত হচ্চে একাধিক ভুঁয়ো খবরও। এবার এমনই এক ঘটনার জেরে কার্যত একঘরে  হওয়ার জোগাড়, বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের এক চিকিৎসকের পরিবারের। জানা গিয়েছে, কাজের চাপে প্রায় মাস দুয়েক বাড়ি ফিরতে পারেননি ওই চিকিৎসক। এর পরেই ওই চিকিৎসকের নিজের গ্রাম হাসনাবাদে ছড়িয়ে পড়েছে যে, তাঁর কোভিড-১৯ পজেটিভ। যার জেরে পাড়ায় একপ্রকার একঘরে করে দেওয়া হয়েছে তাঁর পরিবারকে।  

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক শ্রীদীপ মণ্ডল। উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটের বাসিন্দা তিনি। হাসপাতালের রোগীর চাপ থাকার কারনে হত ২ মাস তিনি ছুটি পাননি বলে খবর। ফলে বাড়িও ফেরা হয়নি তাঁর। এরই মধ্যে আবার দেশজুড়ে চলছে করোনার অতঙ্ক। দিন কয়েক আগে  হোয়াটসঅ্যাপ  গ্রুপে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে, যেখানে বলা হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের ওই চিকিৎসক কানাডায় গিয়েছেন। সেখান থেকে ফেরার পরেই তাঁর করেনা টেস্ট করানো হয় এবং রিপোর্ট পজেটিভ আসে। একইসাথে গুজব ছড়ায় পুলিশ জোর করে তাঁকে ধরে নিয়ে গেছে। এই ঘটনার পরেই একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় ওই চিকিৎসকের মা-বাবাকে। 

অবশেষে কোন উপায় না পেয়ে মা-বাবা শ্রীদীপবাবুকে পুরো বিষয়টি জানান। তড়িঘড়ি র্ধমান মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ জানান ওই চিকিৎসক। প্রয়োজনে তিনি পুলিশের কাছেও যাবেন বলে জানান। 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons