আসানসোলে করোনা টেস্টিং ল্যাবরেটরির আবেদন, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠি বাবুলের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : আসালসোলে করতে হবে করোনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবরেটরি। এদিন এমনটাই আবেদন জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে এদিন চিঠি পাঠালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তাঁর কথায়, এই শহরে কারোর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা গেলেও তিনি আদৌ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কিনা তা পরীক্ষা করার মতো পরিকাঠামো আসানসোলে নেই। নমুনা পরীক্ষার জন্য একমাত্র ভারসা কলকাতা। কিন্তু সেখানে রিপোর্ট পাঠানো থেকে শুরু করে সোই রিপোর্ট হাতে পাওয়া পুরোটাই অত্যন্ত সময় সাপেক্ষ ব্যপার। এতে সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা আরও বাড়তে পারে। তাই এদিন আসানসোলে করোনা পরীক্ষা ল্যাব তৈরির আবেদন জানান তিনি।

বাবুলের কথায়, “কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনকে শনিবার রাতেই আসানসোল-দুর্গাপুরের জন্য করোনা চিহ্নিতকরণের ল্যাব চালুর দাবি জানিয়েছিলাম। সোমবার লিখিতভাবে তাঁকে এই আবেদন ফের করলাম। চিঠিতে উল্লেখ রয়েছে রাজ্যের মধ্যে দ্বিতীয় জনবহুল শহর আসানসোল। শিল্প ও উন্নয়নশীল শহর আসানসোল-দুর্গাপুর। এরকম একটা শহরে COVID-19 পরীক্ষার জন্য পরিকাঠামো যেন গড়ে তোলা হয় ও বেশি বেশি করে কিট পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।”

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ১৯ তারিখ স্কটল্যান্ড ফেরত চার বছরের শিশু ও তাঁর মাকে আসানসোল আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়। হাসাপাতালের কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন ওই শিশুর বাবা। তার পরদিন অর্থাৎ ২০ মার্চ সেখানে আরও একজন যুবককে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ভর্তি করা হয়। সম্প্রতি ওই যুবক ফিরেছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার থেকে। এপরেই পরীক্ষার জন্য তাঁদের নমুনা পাঠানো হয় কলকাতায়। সেখান থেকে রিপোর্ট আসে ২৩ মার্চ। যদিও রিপোর্ট ছিল নেগেটিভ। 

টেস্টের ক্ষেত্রে এই বিপুল সময় যাতে ব্যায় না হয় এবং কলকাতার ল্যাবগুলির ওপরও যাতে চাপ কম পড়ে তাই এদিন স্বাস্থ্যমন্ত্রীকের কাছে আবেদন জানান বাবুল সুপ্রিয়। একইসাথে তাঁর মত, আসানসোলে এই ল্যাব তৈরি হলে এই শহরের পাশাপাশি উপকৃত হবে দুর্গাপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া জেলার রোগীরাও। এর ফলে একদিকে যেমন সংক্রমণ কমবে তেমনই সেখান থেকেই আক্রান্তদের একেবারে কোয়ারেন্টাইনেও পাঠানো যাবে।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons