মিড-ডে মিল নিতে স্কুলে পড়ুয়ারা, বড়সড় শাস্তির মুখে স্কুল শিক্ষকেরা

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনার জেরে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্কুল। এই অবস্থায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় মিড ডে মিলের চাল ও আলু স্কুল পড়ুয়াদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু সেই নির্দেশ আমান্য করে মিড ডে মিল নিতে পড়ুয়াদের স্কুলে ডেকে পাঠানোর অভিযোগে যাদবপুর বিদ্যাপীঠ ও কাটজুনগর বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষককে শাস্তিমূলক বদলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। 

করোনায় রাজ্যের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক। সংক্রমণ যাতে না বাড়ে তাই ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।  এই ছুটির ঘোষনার পরেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন সমস্ত পড়ুয়াদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মিড ডে মিলের ২কেজি চাল ও ২ কেজি আলু দিয়ে আসতে হবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশিকার পরেও তার কোন তোয়াক্কা না করে মিড ডে মিল নেওয়ার জন্য কলকাতা ও জেলার বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের ডেকে পাঠানো হয়। খবর প্রকাশ্যে আসতেই ঘটনার তদন্ত শুরু করে স্কুল শিক্ষা দপ্তর। 

তদন্তের ভিত্তিতে যাদবপুর বিদ্যাপীঠ ও কাটজুনগর স্বর্ণময়ী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষককে বদলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জানা গিয়েছে, টজুনগর স্বর্ণময়ী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক মাসুম আক্তারকে গবাজারের হরনাথ হাই স্কুলে বদলি করা হয়েছে এবং রানীভবানী হাইস্কুলে পাঠানো হয়েছে যাদবপুর বিদ্যাপীঠের পরিমল ভট্টাচার্যকে। 

উল্লেখ্য,করোনা মোকাবিলার স্বার্থে কোন স্থানে যাতে জমায়েত না হয়,  তাই আগেই স্কুল গুলি ছুটি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু এদিন ফের মিড ডে মিল দিতে পড়ুয়াদের স্কুলে ডেকে পাঠানোর ফলে স্কুলগুলি সরকারের সেই উদ্দেশ্যে জল ঢেলে দিয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। এমনকি স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের দায়বদ্ধতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons