জনতা কার্ফু- লাইভ আপডেটস্

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে আজ সকাল সাতটা থেকে রাত ন’টা পর্যন্ত দেশবাসীকে ‘জনতা কার্ফু’ পালনের ডাক দিয়েছিলেন মোদী। কোনও জরুরি পরিষেবা ছাড়া স্বেচ্ছায় গৃহবন্দি থাকার আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি। সেইমতো আজ সকাল থেকেই দেশজুড়ে ‘জনতা কার্ফু’ পালিত হচ্ছে।

দুপুর ১টা ৩০মিনিট

লখনউ

ভারতের অন্যতম সুন্দর শহর লখনউ আজ জনতা কার্ফু তে সামিল । যেদিকেই তাকানো যাচ্ছে সেদিকেই ফাঁাকা রাস্তাঘাট। চলছেনা কোনো যান। মানুষের আনাগেনা ও একেবারেই নেই বললেই চলে।

বেলা ১২টা

বর্ধমান-দুর্গাপুর

‘জনতা কার্ফু’-তে সাড়া দিলেন বর্ধমান ও দুর্গাপুরের মানুষ । আজ সকালে শহরের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেটও ফাঁকা ছিল। মানুষের দেখা মেলেনি সেভাবে। অন্যদিকে, দুর্গাপুরের ছবি ও ছিল অভিন্ন। রবিবারের বাজারে দেখা যায়নি ভিড় । চারিদিকের রাস্তা শুনশান ।

 

সকাল ১১টা  

হায়দ্রাবাদ

সকাল থেকেই হায়দ্রবাদের বিখ্য়াত সৌধ চারমিনারের সামনে ধরা পড়ল জনমানবহীন চিত্র।কয়েকজন পুলিশকর্মী ছাড়া সেভাবে চোখে পড়েনি লোকজন । বন্ধ সকল দোকানবাজার।

সকাল ১০টা

দিল্লি :

‘জনতা কার্ফু’-তে বন্ধ দিল্লির মেট্রো পরিষেবা।

সকাল ৯টা

হাওড়া স্টেশন

রবিবারের তুলনায় ফাঁকা হাওড়া স্টেশন। এদিন মাত্র ৩৪০ টি লোকাল ট্রেন চলবে। ভিনরাজ্য থেকে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের জন্য সরকারের তরফে বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সকাল ৮টা ৩০মিনিট

ধর্মতলা

ফাঁকা, শুনশান ধর্মতলা। ধর্মঘটের দিনেও কলকাতার প্রাণকেন্দ্র এরকম শুনশান থাকে না। কোনও বেসরকারি বাস দেখা যাচ্ছে না। গুটিকয়েক সরকারি বাস চোখে পড়েছে। অ্যাপ ক্যাবও প্রায় অমিল। এমনকী বন্ধ চা দোকানও।

সকাল ৮টা ১০ মিনিট

 শিয়ালদহে কয়েকটি দূরপাল্লার ট্রেন পৌঁছায়। রেলের নির্দেশ মতো, কোনও দূরপাল্লার ট্রেন ছাড়েনি। তবে হাতগোনা লোকাল ট্রেন ছাড়ছে। তাতে যাত্রী সংখ্যা কম।রেল কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়েছে প্রয়োজন ছাড়া রেল ভ্রমণ না করতে। আর পাঁচটা রবিবার শিয়ালদহ ফাঁকা থাকলেও আজকের ছবিটা আরও শুনশান। এদিন শিয়ালদহ থেকে ৫০০-র মতো লোকাল ট্রেন ছাড়বে। অন্য রবিবার ৭৮৮ টি লোকাল ট্রেন ছাড়ে। যাত্রীদের থার্মাল স্ক্রিনিং করা হচ্ছে।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons