‘শনির প্রকোপের জেরেই দেশ জুড়ে এই মহামারী’, নয়া তত্ব জানিয়ে বিতর্কের মুখে দিলীপ ঘোষ

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এবার সমালোচিত হলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি বলেন, ‘পিৎজা, বার্গার, পাস্তা যারা খান তারাই বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। পাস্তা খেলে পস্তাতে হবে। নিম পাতার রস খান।’ তাঁর এই বক্তব্যকে ঘিরে শুরু হয়েছে সমালোচনার ঝড়। 

সম্প্রতি করোনার সংক্রমণ রুখতে গোমূত্র পান, ঠাকুরের প্রসাদ খাওয়ার নিদান দেন মেদিনীপুরের সাংসদ। এবার করোনা সংক্রমণের কারণ জানানোর পর দিলীপ ঘোষের সমালোচনায় মেতেছেন অনেকেই। তবে এদিন দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, ‘বিমান পরিষেবা বন্ধ করে দিলেই সমস্যার সমাধান হবে না। বিদেশে থাকা এদেশের নাগরিকদের সেখানে ফেলে রাখতে পারি না। যারা একথা বলছেন তাদের আমলাই তো আদরের ছেলেকে পায়ের তলা দিয়ে ঢুকিয়ে নিয়ে চলে এসেছেন।’

একইসাথে এদিন বিজেপি সাংসদ সংযোজন করেন, ‘একটা মনসা পুজোতে গিয়ে আমি বলেছিলাম, নিমের রস, থানকুনির রস খেয়ে আমরা বড় হয়েছি। এটাই ভারতীয় সংস্কৃতি, পরম্পরা। এসব খাওয়ার কারনেই আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি। তাই এখানে করোনার প্রকোপ কম। ফ্লু, পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে আমরা মোকাবিলা করে এসেছি। এখুনি আমি একটা কথা বলব , যা নিয়ে এখুনি সোশ্যাল মিডিয়াতে হাসাহাসি শুরু হয়ে যাবে। পুরাণে বলা হয়েছে, শনির যে বছর প্রকোপ বাড়ে তখন এধরনের মহামারি হয়। দুমাস এর প্রকোপ বেশি থাকবে। তিন-চার মাসের মধ্যে ঠান্ডা হয়ে যাবে। ২৫ মার্চ এই ভাইরাসের প্রকোপ সবচেয়ে বেশি হবে।’ এরপর তিনি  প্রাকৃতিক চিকিৎসায় বিশ্বাস রাখার কথাও বলেন। তিনি বলেন, ‘টোটকা, জরিবুটি খেয়ে যারা বিশ্বাস করেছে তাঁরা সুস্থ আছে। আমরা সিজন অনুযায়ী খাবার বদলাই। এখন গরম পড়ছে নিমপাতা, নিমফুল ভেজে খাব। অতি আধুনিক হতে গিয়ে ছেলে-মেয়েদের সর্বনাশ করবেন না।’ 

গোমূত্র প্রসঙ্গেও এদিন তাঁর মুখে ইতিবাচক বাণী শোনা যায়। তিনি বলোন, অবিশ্বাস করে বাঁচার চেয়ে বিশ্বাস করে মরে যাওয়া ভালো।’ তাঁর দাবি গোমূত্র খেলে কেউ অসুস্থ হননা। বরং তা বিদেশে রপ্তানি করে কোটি কোটি টাকা উপার্জন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘শঙ্খধ্বনি জীবাণুমুক্ত করে। ভূমিকম্প হলে শাঁখ বাজিয়ে সতর্ক করা হয়। বিপদে সতর্ক করতে শাঁখ বাজানো হয়। আবার বাড়িতে অতিথি এলে আমরা শাঁখ বাজাই। কাল প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন, বাড়িতে শঙ্খধ্বনি, ঘন্টাধ্বনি, উলুধ্বনি দিন।’

 

 

 
Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons