পুরনির্বাচন হোক শান্তিপূর্ণ, রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে চিঠি ধনখড়ের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : পুরনির্বাচনে ‘বাড়তি বাহিনী’ মোতায়েনের পরামর্শ দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। শান্তিপূর্ণ ভোট নিশ্চিত করতে আগাম ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসকে। থাঁকে পাঠানো ধনখড়ের চিঠিতে ফের একবার প্রকাশ্যে চলে এল রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত।

রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহকেও সেকথা বলে এসেছেন। এবার অবাধ ও শান্তপূর্ণ নির্বাচন নিশ্চিত করতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে চিঠি লিখলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। চিঠিতে নাম না করে কা‌র্যত কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের পক্ষেই সওয়াল করলেন ধনখড়। সৌরভ দাসকে লেখা এই চিঠিতে তিনি লেখেন, “২০১৩ এবং ২০১৮ সালের প্রেক্ষাপটে উদ্বেগের ‌যথেষ্ট কারন রয়েছে। সেই সময় নির্বাচন চলাকালীন হিংসার ঘটনা ঘটেছিল। আক্রান্ত হয়েছিল গণতন্ত্র।এমন অনভিপ্রেত ঘটনা এবং গিংসার মাধ্যমে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অন্তর্ঘাত ও সরকারি কাজে তার প্রভাব এড়াতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার হিসাবে আপনার আগাম ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। পুলিশের পাশাপাশি বাড়তি বাহিনীও মোতায়েন করা ‌যেতে পারে।”

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এখানে ‘বাড়তি বাহিনী’ বলতে কেন্দ্রীয় বাহিনীকেই বোঝাতে চেয়েছেন ধনখড়। এমনকি নির্বাচন কমিশনার বাড়তি বাহিনী চাইলে, তা ‌যে সর্বাধিক গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হবে, তাও স্পষ্ট করেন এদিন তিনি। প্রসঙ্গত, রাজ্যপাল হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বারবার রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলার অবনতির অভি‌যোগ তুলেছেন ধনখড়। তাঁর কথায় একাধিকবার উঠে এসেছে মির্বাচনী হিংসার প্রসঙ্গও। এমনকী, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট নিশ্চিত করতে আগেও রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। এমনকি তাঁর সঙ্গে বৈঠক করার জন্য রাজভবনে গিয়েছিলেন সৌরভ দাস। আর এবার খোদ রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকেই চিঠি পাঠালেন তিনি। এর ফলে নবান্নের সঙ্গে রাজভবনের সংঘাত আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons