অসময়ে তুষারপাত, বরফের চাদরে ঢেকেছে সান্দাকফু-টাইগার হিল

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক :

ফাল্গুন মাস পড়েছে প্রায় ২ সপ্তাহ হল। কিন্তু বরফের চাদর দেখে তা বোঝার উপায় নেই। টইগার হিল ও সান্দাকফু থেকে শুরু করে ধুতরে, টংলুর মতো এলাকা রীতিমতো ঢেকে রয়েছে সাদা বরফে। শৈলশহরগুলিতে গত দু’দিন ধরে চলছে প্রবল তুষারপাত। গত কয়েকদিনের পর সেখানে বুধবারের চিত্রটাও একইরকম। কোন বছরই এই সময় শৈলশহরগুলিতে তুষারপাত হয়না। কিন্তু এবার একেবারে ব্যতিক্রম ঘটনা ঘটেছে। ‌যদিও প‌র্যটকদের কাছে তা অত্যন্ত আকর্ষনীয় হয়ে উঠেছে।

 গত কয়েকদিন আগে দক্ষিণবঙ্গ থেকে শীত বিদায় নিলেও নিম্নচাপ অক্ষরেখার জেরে মঙ্গলবার দিনভর বৃষ্টির ফলে ফের তাপমাত্রার পারদ কিছুটা নেমেছে। ঠান্ডা থাকলেও দক্ষিনবঙ্গে এখন কিছুটা হয়েও বসন্তের আমেজ। তবে উত্তরবঙ্গ থেকে ‌যেন ‌যেতেই রাজি নয় শীত। মঙ্গলবারের পর বুধবার সকালেও শিলাবৃষ্টি হয়েছে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার জেলায়। অন্যদিকে বেশ ভালো পরিমান তুষারপাত হয়েছে টংলু, টাইগার হিল ও সান্দাকফুতে। ‌যার ফলে বেশ খুশি পর্যটকরা।

 এই সময় প্রতি বছরই উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে শীতের আমেজ কলতে থাকে. কিন্তু এবার একেবারে উল্টো পুরাণ। ব্যতিক্রম। তবে ফেব্রুয়ারির শেষও কার্শিয়াং, কালিম্পং-সহ বিভিন্ন জায়গায় শিলাবৃষ্টি ও তুষারপাত হওয়ায় পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে। তুষারপাতের খবর পেয়ে অনেকেই ছুটে আসছেন শৈলশহরগুলিতে।

তবে শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ নয় তুষারপাত চলছে সিকিমেও। উত্তর সিকিমের পাশাপাশি রাজধানী গ্যাংটক ও ছাংগুতেও শিলাবৃষ্টি ও তুষারপাতের সাক্ষী থাকছেন পর্যটকরা। এই সময়ে সিকিমে বরফ দেখা গেলেও এবছর নতুন করে তুষারপাত দেখল পর্যটকরা।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons