বাংলাদেশে আটকে পড়া মানুষদের ফিরতে দিন, রাজ্যকে অনুরোধ কেন্দ্রের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া রুখতে মার্চ মাসের শেষের দিকে ভারত জুড়ে তড়িঘড়ি লকডাউন জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার। আগাম কোনও খবর ছাড়া ওই লকডাউন জারি হয়ে যাওয়ায় সেই সময় পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে গিয়ে আটকে পড়েন বহু ভারতীয়, তারপর থেকে আর দেশে ফেরা হয়নি তাঁদের। এরাজ্য থেকে প্রতিবেশী দেশটিতে গিয়ে আটকে পড়া ২,৬৮০ ভারতীয়কে সীমান্ত দিয়ে বাংলায় প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হোক, পশ্চিমবঙ্গ সরকার ফের একবার এই অনুরোধ করলো কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যের এক উচ্চপদস্থ সরকারি কর্তা জানিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহ আগেও কেন্দ্র এই একই অনুরোধ করেছিল। “ঢাকায় খোঁজখবর নিয়ে আমরা জানতে পেরেছি যে, পেট্রাপোল-বেনাপোল ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট এলাকা দিয়ে ২,৩৯৯ জন মানুষ বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গে ফিরে আসতে চাইছেন এবং আরও ২৮১ জন ফুলবাড়ি-বাংলাবান্ধা সীমান্ত দিয়ে রাজ্যে ফিরতে চাইছেন”, রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহাকে একটি চিঠিতে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব বিক্রম দোড়াইস্বামী।

এই চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, বাংলাদেশে আটকে পড়া পশ্চিমবঙ্গের মানুষেরা “স্কুলের বারান্দায় বা সাধারণ পার্কগুলিতে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন এবং চরম দুর্দশায় জীবন কাটাচ্ছেন”।এঁদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই প্রতিবেশী দেশটিতে নিজেদের আত্মীয়দের দেখতে গিয়েছিলেন বলে জানা গেছে।

কেন্দ্রের এই চিঠি প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারি ওই কর্তা বলেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকার কেন্দ্রের এই অনুরোধ বিবেচনা করে দেখছে এবং তাঁদের ফেরাতে কী করা যায় তার পরিকল্পনা করছে। তিনি একথাও বলেন যে, “তবে দেশে ফেরার জন্য ট্রেনে ওঠার আগে এতদিন ধরে বাংলাদেশে আটকে পড়া ওই মানুষদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার বিষয়টি কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে।”

ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকার রেলমন্ত্রককে একটি চিঠি মারফত বাংলাদেশ থেকে ওই মানুষদের ফিরিয়ে আনতে বিশেষ ট্রেন চালনার কথা বিবেচনা করার অনুরোধ করেছে।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons