কারা প্রথম করোনার টিকা পাবেন, ভাবনাচিন্তা করছে কেন্দ্র

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : কারা প্রথম  করোনাভাইরাসের টিকা পাবেন? সামনের সারির করোনা যোদ্ধারা নাকি বয়স্করা নাকি অন্য কেউ, তা নিয়ে আলোচনা চালাছে কেন্দ্র। এমনটাই জানালেন আধিকারিকরা।

একটি অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ‘অফিসার ইন স্পেশাল ডিউটি’ রাজেশ ভূষণ বলেন, ‘একটি বিষয় উঠে আসছে যে সামনের সারির (করোনা) কর্মীরাই প্রথম টিকা পাওয়ার সেরা দাবিদার। সেই প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা চলছে। তবে তা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। কাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে এবং সামনের সারির স্বাস্থ্যকর্মীদের পর কারা থাকবে এবং তাঁরা যদি প্রথমে আসেন, তারপর কোন মানুষরা আসবেন।’

তিনি জানান,বয়স্ক, কো-মর্বিডিটি থাকা মানুষ নাকি আর্থ-সামাজিকভাবে দুর্বল মানুষদের আগে টিকা দেওয়া হবে, তা নিয়ে আলোচনা চলছে। দীর্ঘদিন ধরে দারিদ্র্যতা ও পুষ্টিহীনতার জেরে ওই পিছিয়ে পড়া মানুষদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কর্তা বলেন, ‘তো এই প্রশ্নগুলিই ভারত সরকারের নীতি নির্ধারকদের ভাবাচ্ছে।’

তবে করোনা টিকা শুধু ধনীরাই পাবেন, গরিবরা কিছু পাবেন না, এমন হবে না বলে আশ্বাস দিয়েছেন নীতি আয়োগের সদস্য ভি কে পাল। জাতীয় করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সে থাকা ওই সদস্য বলেন, ‘আমরা এরকম একটি পরিস্থিতি মেনে নেব না, যেখানে ধনীদের প্রতিষেধক থাকবে এবং গরিবদের থাকবে না। এটা পুরোপুরি অর্মাজনীয়। আমরা নিশ্চিত করবে যাতে একাধিক উপায় তৈরি হয়। অন্য শ্রেণির আগে কোন শ্রেণির মানুষ টিকা পাবেন, তাদের বেছে নেওয়ার কাজ সক্রিয়ভাবে চলছে।’

এদিকে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের (আইসিএমআর) অধিকর্তা বলরাম ভার্গব জানিয়েছেন, সুরক্ষিত ও কার্যকরী টিকা তৈরির পর চারটি মূল বিষয়ের নজর দিতে হবে, সেগুলিই বড় চ্যালেঞ্জ হবে। তিনি বলেন, ‘প্রথমত, অগ্রাধিকার এবং ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণির মধ্যে পর্যাপ্ত বণ্টন। দ্বিতীয়ত, কোল্ড চেন-সহ প্রতিষেধক পাঠানোর কাজ। তৃতীয়ত, টিকা মজুত করা এবং চতুর্থত হল, যাঁরা এই টিকা প্রয়োগ করবেন, তাঁদের প্রশিক্ষণ দেওয়া।’

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons