করোনার মধ্যে নতুন বিপদ, রাজ্যবাসীকে ২ দিন বাড়িতে থাকার পরামর্শ মহারাষ্ট্র প্রশাসনের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি দিনের পর দিন সংকটজনক হয়ে উঠছে। তার মধ্যেই এবার নতুন করে রাজ্যবাসীর কাছে আতঙ্কের কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ। মৌসম ভবনের তরফে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল ২ থেকে ৩ মে-এর মধ্যে প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়বে এই ঘূর্ণিঝড়। তবে ২ মে তথবা বুধবার বিকেলেই এই ঘূর্ণিঝড় মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রবল শক্তিধর এই ঘূর্ণিঝড় রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকায় তান্ডবলীলা চালাতে পারে। আর ঠিক সেকারনেই রাজ্যবাসীকে আগামী ২ দিন বাড়ি থেকে বেরোতে না বেরোনোর পরামর্শ দিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে।

ইতিমধ্যেই আমফানের জেরে ক্ষতবিক্ষত হয়েছে বাংলার একাধিক এলাকা। আর এবার ফের মহারাষ্ট্রের কাছে চিন্তার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে নিসর্গ। মৌসম ভবন সুত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘূর্ণিঝড়ের জেরে প্রায় ১০০ কিমি বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে, ভারী বৃষ্টিতে মহারাষ্ট্র সহ গুজরাটের বিভিন্ন এলাকা। ইতিমধ্য়েই ক্ষয়ক্ষতির রুখতে এই দুই রাজ্যের উপকূলে ৩০টি এনডিআরএফ দল মোতায়েন করা হয়েছে। উপকূলে মোতায়ন করা হয়েছে উপকূলরক্ষী বাহিনী। যে কোন পরিস্থিতির জন্য সতর্ক রয়েছেন বায়ুসেনা ও নৌসেনা।

বুধবার সকাল পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে বলেছে ৭২ হাজার ৩০০। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৪৬৫ জনের। রাজ্যকে করোনার থাবা থেকে মুক্ত করতে যখন হিমসিম খাচ্ছে রাজ্য সরকার, তখন নতুন করে চিন্তার কালো মেঘ জমাচ্ছে সাইক্লোন নিসর্গ। তাই ইতিমধ্য়েই রাজ্যের সাধারণ মানুষকে কঠিন পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। এমনকি শক্তিশালী এই ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়লে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ারও আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়ছে প্রশাসন। এমনকি সেবিষয়ে সকলে যেন বিকল্প কোন ব্যবস্থা করে রাখেন তার পরামর্শও দিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকারের। পাশাপাশি ২ দিনের জন্য সমস্ত ধরনের তৎপরতাই বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার।

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons