‘দ্বিতীয়’ বর্ষপূর্তির দিনে জাতির উদ্দেশ্যে চিঠি প্রধানমন্ত্রীর

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা ভাইরাসের  সঙ্কটকে সঙ্গে নিয়েই প্রধানমন্ত্রী  হিসাবে নরেন্দ্র মোদীর দ্বিতীয় মেয়াদের একবছর পূর্ণ হয়ে গেল। এই পরিস্থিতিতে তিনি জাতির উদ্দেশে একটি চিঠি লিখে নিজের বার্তা দিয়েছেন। গতবছর অনেকগুলো ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল এবং দ্রুত অগ্রগতির দিকে এগোনোর চেষ্টা করা হলেও হঠাৎ করেই সবকিছুতে বাদ সেধেছে করোনা ভাইরাস নামের মারাত্মক সংক্রামক রোগটি। দেশকে এক কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে বর্তমান পরিস্থিতি। আর এই করোনা সঙ্কটের ফলে “সাংঘাতিকভাবে ভুগতে হচ্ছে” দেশের পরিযায়ী শ্রমিকদের, দেশবাসীকে এমনটাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। তবে শুধু পরিযায়ীরাই নন, এই চরম সঙ্কটে গোটা দেশই ভুক্তভোগী। কিন্তু হতাশার বার্তার মধ্যেও আশার আলো দেখিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি বিশ্বাস করেন, ভারত এই অবস্থা থেকে অর্থনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে এবং গোটা বিশ্বকে অবাক করে দেবে।

নিজের চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী লিখেছেন, “এই ধরণের মারাত্মক সঙ্কটে কখনোই এমন দাবি করা যায় না যে কেউ কোনও অসুবিধা বা সমস্যায় পড়েননি। আমাদের দেশের শ্রমজীবী মানুষজন, পরিযায়ী শ্রমিক, ক্ষুদ্র শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এবং কারিগর, হকার সহ দেশের সব ধরণের মানুষই প্রচণ্ড দুর্ভোগ সহ্য করছেন”।

“তবে, আমাদের এদিকে সবসময় খেয়াল রাখতে হবে যে আমাদের এইসব সমস্যাগুলো যেন কোনওভাবেই বিপর্যয়ের আকার না নেয়”, একথাও চিঠিতে উল্লেখ করেন নরেন্দ্র মোদী। কাজ হারিয়ে যে সব মানুষ হাজার হাজার কিলোমিটার হেঁটে বা সাইকেল চালিয়ে বা ট্রাকে করে ঘরে ফেরার চেষ্টা করেছেন সেই কথাও স্মরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। 

“আমাদের দেশ একসঙ্গে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ এবং সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে। আমি দিনরাত কাজ করে যাচ্ছি। আমার কাজে হয়তো কিছু ঘাটতি থাকতে পারে তবে আমাদের দেশের মধ্যে কোনও উদ্যমের অভাব নেই। সুতরাং, আমি আমার নিজের শক্তির থেকে অনেক বেশি দশেরক্ষমতায় বিশ্বাস রাখি। তাই নিজেকে বিশ্বাস করুন”, ফের একবার স্বনির্ভর ভারতের মন্ত্রটি পাঠ করে একথা লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশবাসীকে উৎসাহিত করতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর বার্তা, “সারা বিশ্বেই এখন এই মহামারী, এটা অবশ্যই বিশাল এক সঙ্কটের সময়, তবে এই সময়টাই আমাদের জন্যে, সমস্ত ভারতবাসীর জন্যে আরও দৃঢ় সংকল্পের সময়। আমাদের সবসময় মনে রাখতে হবে যে ১৩০ কোটি মানুষের বর্তমান ও ভবিষ্যত কখনই এভাবে প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে যেতে পারে না, আমরা ঘুরে দাঁড়াবোই”। গতবছরের এই সময়েই তিনি ফের প্রধানমন্ত্রী হয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন, এই ঘটনাকে দেশের গণতন্ত্রের পক্ষে “স্বর্ণ অধ্যায়” বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আশা করোনাকে হারিয়ে ভারত আবার জগৎসভায় শ্রেষ্ঠ আসন অধিকার করবে।

 

Inform others ?

হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে গেছে !

Show Buttons
Hide Buttons