লাদাখ সীমান্তে আরও কড়া ভারত, সৌজন্যের বার্তা দিল বেজিং

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : লাদাখ সীমান্তে ক্রমেই বাড়ছিল ভারত-চিন উত্তেজনা। দিনের পর দিন সংঘাতের স্বার্থে নিজেদের শক্তি বাড়িয়ে চলেছিল চিন সেনারা। এই পরিস্থিতিতে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় লাদাখের লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল তথা এলএসি বরাবর আরও সেনা বাড়ানোর কাজ শুরু করেছে ভারত। আর এই পদক্ষেপে অবশেষে সুর নরম করতে বাধ্য হল চিন।

এবিষয়ে চিনা বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিচিয়ান বলেন, সীমান্তে সামগ্রিক পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রনে। দু’দেশে আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যা মিটিয়ে নিতে পারে। নয়াদিল্লির চিনা রাষ্ট্রদূত সান ওয়েইডং-এর মতে, “এই দুই দেশ পরস্পরের জন্য অনেক সুযোগ বহন করছে এবং এই দুই দেশ পরস্পরের জন্য বিপজ্জনক নয়।” তিনি আরও বলেন, “বিক্ষিপ্তভাবে যে মতান্তর তৈরি হয়েছে, তা যেন দু’দেশের মধ্যে সার্বিক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উপর প্রভাব না ফেলে, সেটাই মঙ্গল। ড্রাগন ও হাতি পরস্পর হাত ধরে নাচছে, দু’দেশের জন্য সেটাই সঠিক পদক্ষেপ হবে।”

কিন্তু চিনের এই সৌজন্যবার্তার পরে এখনও পর্যন্ত সেবিষয়ে মুখ খোলেনি ভারত। ইতিমধ্য়েই এবিষয়ে সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। মূলত গালওয়ান উপত্যকায় এলএসি বরাবর প্রায় হাদার পাঁচেক সেনা মোতায়েন করেছে চিন। তাই ভারতের তরফেও পাল্টা কূটনৈতিক পথে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালানো হয়। সেই মর্মে সেনা সমাবেশ বৃদ্ধি করে ভারত। তারপরেই নিজেদের উত্তেজনা কম করে  সৌজন্য বার্তা দেয় চিন। তবে সুত্রের তরফে জানা গিয়েছে, চিনের তরফে সুর নরম করা হলেও এখনই লাদাখ সীমান্ত থেকে সেনা কমাবেনা ভারত। তবে কী ভারত-চিন যুদ্ধই এখন আসন্ন! তা সময়ই বলবে।

 

 

Inform others ?

হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে গেছে !

Show Buttons
Hide Buttons