চাকরি থাকুক সকলেরই-মোদী

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : ভারতের মতো দেশের পক্ষে যেখানে জীবন বাঁচানোর জন্য করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করা যেমন বড় চ্যালেঞ্জ তেমনিই দেশের অর্থনীতি বাঁচিয়ে রাখাও বড় চ্যালেঞ্জ ৷ এই লড়াইতে টানা ৪০ দিনের লকডাউনে বিভিন্ন সেক্টর ক্ষতিগ্রস্ত হবে তাতে ভীষণভাবেই কর্মী ছাঁটাই হওয়ার সম্ভবনা ছিলই।

তিনি করোনার বিরুদ্ধে লড়াইের জন্য সাতটি নিয়মের ঘোষণা করেছেন ৷ সেখানেই তিনি সমস্ত কর্মীনিয়োগকারী সংস্থাদের কাছে আবেদন করেন এই অবস্থার মধ্যে ও পরে যেন কোনও একজন কর্মচারীরও চাকরি না যায় ৷ কারণ করোনা ভাইরাসের মারণ থাবার সঙ্গে যেরকম লড়াই করছে মানুষ তেমনিই নিজেদের কর্ম সংক্রান্ত নিরাপত্তা নিয়ে একইরমক ভাবে চিন্তিত ৷প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এদিন যেভাবে নিজের ভাষণে মানবিক মুখ দেখিয়েছেন তাতে সকলেই একটু হলেও হয়ত আশ্বস্ত হবেন ৷

এদিকে এর আগে করোনা যুদ্ধে ভারতবাসীর লড়াইকে কুর্নিশ করে ফের একবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিলেন নরেন্দ্র মোদি ৷ ১৪ এপ্রিল ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে নতুন বছর শুরুর সময় ৷ ২১ দিনের লকডাউনের শেষে নতুন করে আরও ৩ মে অবধি লকডাউন ঘোষণা করেন নরেন্দ্র মোদি ৷

এদিকে ভারত খন সারা দেশে ৫৫০ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত ছিল তখন লকডাউনের ঘোষণা করে ভারত ৷ আর তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসেবে বিশেষ অর্থনৈতিক ক্ষতির সামনে পড়তে হয়েছে ভারতকে ৷ কিন্তু তাও সেটা মেনে নেবে দেশ ৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়ে দিয়েছেন দেশের মানুষের জীবনের চেয়ে কোনও কিছু দামি নয় ৷

তাই ভারত সেই মানুষের জীবন বাঁচানোর ব্রত নিয়েই এগিয়ে গেছে ৷ পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদি আরও জানিয়েছে হটস্পট চিহ্নিতকরণের কাজ চলছে ২০ এপ্রিল মাসের মধ্যে সেটা করা হবে ৷

তারপর সেই এলাকায় লকডাউন অত্যন্ত কড়া ভাবে মানা হবে ৷ কেউ বেরোতে পারবে তখনই খন প্রয়োজন অত্যন্ত বেশি হবে ৷

 

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons