স্ত্রীকে বসার জায়গা দিতে অনুরোধ, ট্রেন যাত্রীদের গণপিটুনিতে মৃত্যু যুবকের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : লোকাল ট্রেনে প্রচন্ড ভিড়, তার মধ্যে মেয়েকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মা। এই অবস্থায় স্ত্রীকে একটু বসার জায়গা করে দিতে গিয়ে মর্মান্তিক পরিণতি হল স্বামীর। এদিন ট্রেনের মধ্যে আসনে বসে থাকা মহিলাদের কাছে ওই ব্যক্তি খানিকটা সরে বসার অনুরোধ করেন। কিন্তু তাতেই ঘটল বিপত্তি। যাত্রীদের পিটুনিতে প্রাণ হারালেন ওই ব্যক্তি।

অমানবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মুম্বই-লাতুর-বিদর এক্সপ্রেসে। এদিন এক আত্মীয়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে অংশগ্রহন করার জন্য সপরিবারে রওনা দিয়েছিলেন সাগর মারকণ্ড। কিন্তু বছর ২৬-এর ওই ব্যক্তির তাঁর আর গন্তব্যে পৌঁছানো হলনা। চূড়ান্ত অমানবিকতার এই ঘটনার চমকে উঠছে গোটা দেশ।

বুধবার রাতে মুম্বই-লাতুর-বিদর এক্সপ্রেসে স্ত্রী জ্যোতি এবং দু’বছরের দুধের শিশুকে নিয়ে জেনারেল কামরায় ওঠেন সাগর। কোনওভাবে এক কোণে দাঁড়িয়েছিলেন তিনজন। কোলে থাকা সন্তানকে নিয়ে স্ত্রী যাতে একটু বসতে পারেন, তার জন্য সামনের আসনে থাকা মহিলাদের অনুরোধের সুরেই একটু অ্যাডজাস্ট করে বসতে বলেছিলেন। কিন্তু যাত্রীরা সে কথা কানে না তুলে তাকে কটূক্তি করতে থাকেন। তারপরই শুরু হয় কথাকাটাকাটি। এবিষয়ে রেলওয়ের এসপি দীপক সাতোরি জানান, কাটাকাটি থেকেই হাতাহাতি শুরু হয়। ১২ জন যাত্রী এতটাই রেগে ‌যান ‌যে সাগরকে মাটিতে ফেলে কিল-চড়-ঘুষি-লাথি মারতে থাকেন। জানা গিয়েছে, এই ১২ জন ‌যাত্রীর মধ্যে ৬ জন ছিলেন মহিলা। পরিস্থিতি সামাল দিতে স্বামীর প্রাণভিক্ষা চাইতে থাকেন স্ত্রী জ্যোতি। কিন্তু তাঁর কথা শোনা তো দূর, এরপরেও চলতে থাকে মার।

প্রায় এক ঘণ্টা নির্মমভাবে মার চলতে থাকে। এরপর দাউন্দ স্টেশনে ট্রেন দাঁড়ালে ছুটে আসে রেল পুলিশ। তড়িঘড়ি সাগরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ো ‌যাওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করে ছয় মহিলা ও তিন পুরুষ যাত্রীকে আটক করে পুলিশ। এমন অমানবিক ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তার নিন্দায় সরব হয়েছে সমগগ্র দেশের মানুষ।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons