সোশ্যাল মিডিয়ায় ফেক অ্যাকাউন্টের ওপর নজরদারি, নয়া বিল মোদি সরকারের

A picture taken on October 1, 2019 in Lille shows the logo of mobile app Instagram, Snapchat, Twitter, Facebook, Google and Messenger are displayed on a tablet. (Photo by DENIS CHARLET / AFP) (Photo by DENIS CHARLET/AFP via Getty Images)

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : দিনের পর দিন সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ‌যেমন বাড়ছে, তার সাথে টেক্কা দিয়ে বাড়ছে অ্যাকাউন্ট খোলার ধুম। তার মধ্যে বেশ কিছু অ্যাকাউন্ট রিয়েল হলেও ফেকের সংখ্যা একেবারের কম নয়। তবে এবার থেকে পরিচয় নকল করে ফেক অ্যাকাউন্ট খোলার দিন শেষ হতে চলেছে। কারন এবার একটি নতুন বিল আনতে চলে‌ছে মোদি সরকার। ‌যার ফলে এবার থেকে চাইলেই সরকার ফেসবুক, ইউটিউব কিংবা টিকটকেও ইউজারের সমস্ত পরিচয় জানতে পারবে। আর এর ‌জন্য কোনও ওয়ারেন্ট বা আদালতের অর্ডার লাগবে না।

তবে এর আগে ২০১৮ সালেও এই সংক্রান্ত একটি খসড়া বিল প্রকাশ করেছিল কেন্দ্র। কিন্তু সেসময় গুগল, ফেসবুক সহ একাধিক সোশ্যাল মিডিয়া এর বিলের তীব্র বিরোধীতা করে। এরপর ফের ২০২০ সালে সেই বিল কা‌র্যকর করতে চলেছে সরকার। কিন্তু এই নতুন বিলেও সেভাবে কোন পরিবর্তন আনা হয়নি। এই বিল আনু‌যায়ী সরকার ‌যদি তথ্য চায় তাহলে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সেটি দিতে হবে। এমনকি সমস্ত তথ্য সোশ্যাল মিডিয়াকে ১৮০ দিন অবধি স্টোর করে রাখতে হবে।  

সংবাদমাধ্যম সুত্রে পাওয়া খবর, বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার ইউজার সংখ্যা প্রায় ৫০ লক্ষ্যেরও বেশি।সরকার জানিয়েছে, এবার থেকে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের প্রত্যেকের বিষয়ে প্রয়োজনে তথ্য নেওয়া হবে। এবং সোশ্যাল মিডিয়ার কতৃপক্ষ তা দিতে বাধ্য থাকবে।

‌যদিও সরকারের এই বিল একেবারেই মানতে রাজি নয় হোয়াটসঅ্যাপ। তাঁদের কথায়, তারা এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন ব্যবহার করে, তাই তাঁদের পক্ষে কোনভাবের গ্রাহকদের পরিচয় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। তবে মোদি সরকারের এই নতুন আইনে গ্রাহকদের গোপনীয়তা বলে কিছু থাকবেনা বলেই মনে করা হচ্ছে। তাই এ বিল কি দেশে আদৌ কা‌র্যকর হবে? তা নিয়ে চলছে জল্পনা।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons