গ্যাস কাটার দিয়ে ভল্ট কেটে ডাকাতির চেষ্টা নিউমার্কেটের রাষ্টায়ত্ব ব্যাঙ্কে

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : খাস কলকাতায় ব্যাঙ্কের ভল্ট কেটে লুঠ করার চেষ্টা করল দুস্কৃতীরা। ৫ নম্বর লিন্ডসে স্ট্রিটের এই রাষ্টায়ত্ব ব্যাঙ্কে ঘটেছে এই ঘটনা। পুলিশ সূত্রে খবর সেমবার ব্যাঙ্কের মূল দরজা দিয়ে ঢোকেন কর্মচারীরা, এবং দেখেন ভল্টের একাংশ গ্যাস কাটারের মত কোনো ‌যন্ত্র দিয়ে কাটা ছিল।

এরপর এই কর্মীরা ব্যাঙ্কের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানায় এবং তারপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। এরপরই সেখানে নিউমার্কেট থানার পুলিশ পৌঁছয়। সেখানে আসেন ডিজি নীলকন্ঠ সুধীর কুমার। এই ঘটনার তদন্ত করছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

প্রাথমিক তদন্ত থেকে জানা ‌যাচ্ছে, ঐ ব্যাঙ্কে দুস্কৃতীরা সামনের দরজা দিয়ে ঢোকেননি। কারণ সেই দরজা ও তালা অক্ষত ছিল সোমবার প‌র্যন্ত। দুস্কৃতীরা ব্যাঙ্কের পেছন দিকের একটি ঘুলঘুলি দিয়ে প্রবেশ করে ব্যাঙ্কের মধ্যে। এই শনিবার মাসের চতূর্থ শনিবার হওয়ায় ব্যাঙ্ক বন্ধ ছিল এবং পরেরদিন অর্থাৎ রবিবারও বন্ধ ছিল এই ব্যাঙ্ক এর ফলেই দুস্কৃতিদের কাজে বেশ সুবিধাই হয়েছে বলে মনে করছেন পুলিশ।

ঢোকার পর দুস্কৃতীরা গ্যাস কাটার দিয়ে ব্যাঙ্কের ভল্ট কাটতে শুরু করেন। ব্যাঙ্কের তরফ থেকে পুলিশকে জানানো হয়েছে ব্যাঙ্কের ভল্টের দুটি অংশ। ‌যে অংশ দুস্কৃতীরা কেটেছেন সেই অংশে বেশি বড় অঙ্কের টাকা বা সোনা গয়না কোনোটাই ছিলনা, ফলে বিশেষ কিছু খোয়া ‌যায়নি বলেই জানিয়েছেন তারা। কিছু খুচরো পয়সা খোয়া গেছে শুধু।

প্রথমিক তদন্তের পর এই ব্যাঙ্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বেশ কিছু আশঙ্কা প্রকাশ করেছে পুলিশ। ব্যাঙ্কের ভেতরে সিসি ক্যামেরা থাকলেও তা কাজে লাগেনি। এই সমস্ত ক্যামেরাই বন্ধ ছিল। প্রথমে দুস্কৃতীরাই এই ক্যামেরার তার কেটেছে বলে ভাব হলেও,পরে দেখা ‌যায় তার অক্ষতই আছে বরং বিদ্যুৎ সং‌যোগ ছিলনা ব্যাঙ্কের ভেতরে। এমনকি দুস্কৃতীরা ব্যাঙ্কের ভেতরে ঢুকে ভল্ট কাটার পরেও বাজেনি অ্যালার্ম। সাধারণত প্রত্যেক ব্যাঙ্কের ভেতরে অ্যালার্ম থাকে নিরাপত্তার জন্য। কিন্তু এক্ষেত্রে কেন বাজলোনা সেই অ্যালার্ম। প্রশ্ন করছেন তদন্তকারীরা।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons