ভালোবাসায় সন্দেহ, প্রেমিকার দাঁত ভেঙে দিলেন যুবক

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : ভালোবাসায় নাকি মানুষ পাগল হয়ে ‌যায়। কথাটা বহুবার শোনা গেলেও এবার তার প্রমান দিলেন আহমেদাবাদের এক প্রেমিক ‌যুগল। বছর পনেরো ধরে তাঁরা লিভ ইনে রয়েছেন।  তবে বিবাহিত জীবনে তাঁদের সঙ্গি পৃথক। তাও দীর্ঘ পনেরো বছর ধরে একে অপরকে ভালোবেসে চলেছেন তাঁরা।কিন্তু হঠাৎ করেই সন্দেহ শুরু হওয়ায় প্রমিকার দুটি দাঁত  তুলে দেয় প্রেমিক ‌যুবক।

জানা গিয়েছে, গীতা বেন  নামের ওই ‌যুবতী গুজরাতের আহমেদাবাদের বাসিন্দা।পরিচারিকার কাজ করেন তিনি। অন্যদিকে তাঁর বয়ফ্রেন্ড পেশায় একজন অটোচালক। তাঁদের দুজনেরই অন্য জায়গায় বিয়ে হয়ে গেলেও তাঁরা সংসার ছেড়ে একে অপরকে ভালোবেসে এসেছেন দীর্ঘ পনেরো বছর।

এতদিন সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও প্রামিকাকে নিয়ে সন্দেহ করতে শুরু করে তাঁর প্রেমিক। প্রথমদিকে সন্দেহের  বসে ঘরের সব জানলায় কালো কাপড় লাগিয়ে দেয় ওই ‌যুবক, যাতে গীতা বেন কে কেউ দেখতে না পায়। কিন্তু তাতেও মেটেনি সন্দেহ। ‌যাতে তাঁর প্রেমিকার প্রতি কেউ আকৃষ্ট না হয় তাই প্রেমিকা গীতা বেনের সামনের দুটি দাঁত ও তুলে দিয়েছে সে।       

ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই হতচকিত হয়ে ‌যান এক মনরোগ বিশেষজ্ঞ।তবে এত কিছুর পরেও ভালোবাসার খাতিরেই প্রেমিকের নামে পুলিশে কোনো মামলা করেননি ওই ‌যুবতী। তবে তাঁর প্রেমিক লিখিত ভাবে জানিয়োছেন এমন কাজ তিনি আর কোনদিনও করবেননা।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons