‘নন্টে-ফন্টে’র ৫০ বছর পূর্তি- উন্মাদনা কই বাঙালি জাতির?

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : দেখতে দেখতে পঞ্চাশটা বছর অতিক্রম করে ফেললো বাঙালির জনপ্রিয় কমিক্স ‘নন্টে-ফন্টে’। বইয়ের পাতায় কার্টুন চিত্রে ‘নন্টে-ফন্টে’ কমিক্স আজও বাঙালি সমাজে চিরন্তন। শৈশবে আমরা ‘নন্টে-ফন্টে’ টিভিতে দেখতাম। কী মজাই না হতো এই কমিক্স চরিত্রদের দেখে। সাহিত্যিক নারায়ণ দেবনাথের অমর সৃষ্টি হলো ‘নন্টে-ফন্টে’। বাঙালি বাড়ির ছোটো ছোটো ছেলেমেয়েদের আজও সমান মজাদান করে ‘নন্টে-ফন্টে’। প্রাণখুলে হাসতে চাইলে ‘নন্টে-ফন্টে’র জুড়ি মেলা ভার।

 

বাংলার শহর থেকে গ্রামাঞ্চল প্রতিটি জায়গায় সমান জনপ্রিয় ‘নন্টে-ফন্টে’৷ এখনও অনেক টিভি চ্যানেলে ‘নন্টে-ফন্টে’ প্রতি রবিবার দেখানো হয়। আর ইউটিউব চ্যানেলগুলোতে ‘নন্টে-ফন্টে’র প্রায় সকল গল্পই রয়েছে। এই কমিক্সের নন্টে-ফন্টে চরিত্র দুটো বেশ হাস্যকর তার থেকেও আরো বেশি হাস্যকর কেল্টুদা। সকাল থেকে রাত যার দস্যিপনা চলতে থাকে। দিনের শেষে মাস্টারমশাই এর কাছে কখনো বেতের বাড়ি খায় সে আবার কখনো মাস্টারমশাই তার ওপর ফুলদানি ছুঁড়ে মারে। নন্টে-ফন্টে পর্যন্ত তাকে জব্দ করতে ছাড়েনা। কখনো তাকে নকল বাঘ সেজে প্রবলভাবে ভয় দেখায়। কেল্টুটা হাজার চেষ্টা করেও নন্টে-ফন্টেকে শায়েস্তা করতে পারেনা। নন্টে-ফন্টের সাথে কেল্টুদার দুষ্টুমি চললেও তাদের মধ্যে গভীর বন্ধু অটুট থাকে।  

কচিকাঁচা থেকে শুরু করে প্রাপ্তবয়স্ক সকলেই পছন্দ করেন ‘নন্টে-ফন্টে’। চলতি বছরে পঞ্চাশ বছরে পা দিল ‘নন্টে-ফন্টে’। ১৯৬৯ সালে ‘কিশোর ভারতী’ পত্রিকায় প্রথম আত্মপ্রকাশ করেছিল ‘নন্টে-ফন্টে’। প্রায় পঞ্চাশ ধরে যত্ন সহকারে নিজের হাতে ছবি এঁকে ও গল্প লিখে সাহিত্যিক নারায়ণ দেবনাথ জীবন্ত করে তুলেছেন ‘নন্টে-ফন্টে’ কমিক্সকে। নারায়ণ দেবনাথের গবেষক শান্তনু ঘোষ তাঁর প্রতিটি কমিক্স নিয়ে গবেষণা করছেন।

সাহিত্যিক নারায়ণ দেবনাথের  বর্তমান বয়স ৯৫ বছর। তাঁর অমর সৃষ্টি ‘নন্টে-ফন্টে’ পঞ্চাশ  বছর পূর্ণ করলো। যেটা বাঙালিদের কাছে অত্যন্ত গর্বের ব্যাপার। কিন্তু ‘নন্টে-ফন্টে’র পঞ্চাশ বছর পূর্ণ হবার পরও তাঁর খোঁজ নিতে ও তাঁর সাথে দেখা করতে কেউ আসেননি। একমাত্র কমিক্স গবেষক শান্তনু ঘোষ এগিয়ে আসেন। তিনি তাঁর বাড়িতে গিয়ে ‘নন্টে-ফন্টে’র পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে কেক কেটে পঞ্চাশ বছর পূর্তি উদযাপন করেন।

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons