সিঁথি কাণ্ডের নাটকীয় মোড়, তদন্ত শুরুর আগেই নিখোঁজ আসুরা

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : হাসপাতালে  প্রৌঢ় ব্যবসায়ীর মৃত্যুর ঘটনার নাটকীয় মোড়। তদন্ত শুরুর আগেই নিখোঁজ হলেন আসুরা বিবি। সাক্ষী হিসাবে অসুরাকে নিয়ে ‌এসেছিল পুলিশ। তাঁকে দিয়ে বয়ানও দেওয়ান হয়েছিল। কাগজকুড়ানি আসুরা বিবির বিরুদ্ধে অভি‌যোগ করা হয় তিনি নাকি রাজকুমারকে চুরির মাল বিক্রি করেছিলেন।

শনিবার গর্ভবতী অসুরা বিবি অভি‌যোগ জানান, ‌যদি তিনি দোষ না মানেন তাহলে তাঁকে লালবাজারে প‌র্যন্ত পাঠানো হবে ভয় দেখায় পুলিশ। দোষ স্বীকার করানোর জন্য তাঁকে ইলেকট্রিক শক প‌র্যন্ত দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, সোমবার রাজকুমার সাউকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিঁথি থানায় ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে জিজ্ঞাসাবাদের  নাম করে বছর ৫৩ ওই ব্যবসায়ীকে বেধড়ক মারধর করে পুলিশ। রাজকুমারের পরিবারের তরফে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। তবে পুলিশের তরফে সেই অভি‌যোগ উড়িয়ে দিয়ে জানানো হয়, সোমবার সকাল ১১ টা নাগাদ রুটিন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাজকুমার সাউকে  থানায় ডেকে পাঠানো হয়। পুলিশের দাবি আগে থেকেই হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। ছাঁট লোহার ব্যাপারে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সন্ধে ৬টার দিকেও অবস্থা ঠিক না হওয়ায় তাঁকে আর জি কর হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। কিন্তু সেখানেই মৃত্যু হয় রাজকুমারের।     

রাজকুমারের পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে, সন্ধ্যে ছ’টা নাগাদ সিঁথি থানা থেকে ফোন করে রাজকুমারের মৃত্যুসংবাদ দেওয়া হয়। তিনি ‌অসুস্থ ছিলেননা বলেও দাবি করেন মৃতের পরিবার। তাঁরা অভি‌যোগ করেন, পুলিশের মার খেয়েই মৃত্যু হয়েছে রাজকুমারের। এমনকি থানায় আটকে এদিন রাজকুমারকে বিদ্যুতের শক দেওয়া হয়েছে বলে অভি‌যোগ তুলেছেন তাঁরা।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons