দেশে কবে প্রথম হানা দিয়েছিল করোনা, খোলসা করল চিন

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক :  করোনার মতো মারণ ভাইরাসের জেরে আজ মৃত্যুমিছিল চলছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে। গোটা বিশ্বে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭০ লক্ষ। আমেরিকায় এখনও অব্যাহত মৃত্যুমিছিল। বিশ্বব্যাপী এই মহামারীর জন্য বারে বারে চিনকেই দায়ী করা হয়েছে। চিনের বিরুদ্ধে সরাসরি তথ্য গোপনের অভিযোগ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার সেই সমস্ত অভিযোগের ভিত্তিতে করোনার আবির্ভাব নিয়ে রীতিমত শ্বেতপত্র প্রকাশ করল জিনপিং প্রশাসন। সেই শ্বেতপত্রে জানানো হয়েছে, জানিয়ারি নয় বরং ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকেই করোনা সংক্রমণ ছড়ায় চিনে। 

রবিবার চিনের তরফে প্রকাশিত ওই শ্বেতপত্রটির মাধ্যমে জানানো হয়, ২০১৯এর ২৭ ডিসেম্বর প্রথম করোনা সংক্রমণ শুরু হয় দেশে। ইউহানের মানুের মধ্যে নিউমোনিয়ার উপসর্গ দেখা যায়। প্রথম দিকে লক্ষণ দেখে ভাইরাসের পরিচয় বোঝা যায়নি। তবে ধীরে ধীরে তার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় জানুয়ারির দ্বিতীয় ভাগে এটি মহামারির আকার নিতে শুরু করে। কিন্তু নিউমোনিয়া এভাবে যেহেতু ছড়ায়না, তাই সংক্রমণ বাড়ার সাথে সাথে নেচিবাচক আশঙ্কা তৈরি হয় সাধারণ মানুষ সহ দেশের প্রশাসনের মনে। বিষয়টিকে আরও খোলসা করতে জিংপিং প্রশাসনের তরফে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি তৈরি করা হয়। একইসাথে সতর্কতাও বৃদ্ধি করা হয়।

প্রশাসনের তরফে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি ১৯ জানুয়ারি জানায়, এটি নিউমোনিয়া নয়। এটি একপ্রকার ভাইরাস, যার সংক্রমণ ক্ষমতা অনেক বেশি। এবং সংক্রমণ ঠেকানোও বেশ কঠিন। শ্বেতপত্রে বলা হয়েছে, ডিসেম্বর-জানুয়ারি মাসে যাঁরা সেদেশে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন তাঁরা যে সকলেই স্থানীয় মার্কেট অর্থাৎ সামুদ্রিক খাদ্যপণ্যের বাজারে যে তাঁরা সকলেই গিয়েছিলেন তার সেভাবে কোন প্রমান মেলেনি। তাই কিভাবে এই সংক্রমণ ছড়ালো সেবিষয়ে এখনও স্পষ্ট ভাবে কিছু জানা যায়নি।

 

 
 
Inform others ?

হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে গেছে !

Show Buttons
Hide Buttons