তাবে কী চিন থেকেই ছড়িয়েছে করোনা? হু-এর সিদ্ধান্তে ফের বাড়ল জল্পনা

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : সমস্যার সমাধান করতে হলে, তার সুত্রের সন্ধান করতে হবে। এই প্রবাদের ওপর ভিত্তি করেই এবার করোনার আতুড়ঘর চিনে গিয়ে এই ভাইরাস সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য খুঁজে বের করতে চান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু-এর বিশেষজ্ঞরা। ইতিমধ্যেই এই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে চিনে। 

একমাত্র ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলেই করোনার মতো মারণ ভাইরাসের কবল থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে বলে বারে বারে দাবি করেছেন হু-এর বিশেষজ্ঞরা। তার পরেই একাধিক দেশে এই ভ্যাকসিন তৈরির কাজ শুরু হয়। ইতিমধ্য়েই বেশ কয়েকটি দেশের আবিষ্কার করা ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগও হয়েছে। কিন্তু হু জানাচ্ছে, প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে হলে প্রথমেই রোগের আঁতুড়ঘর খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। সেখানকার বিস্তারিত তথ্য মিললে তবে সেই প্রতিষেধক প্রস্তুত অনেক বেশি সহজ হবে।

করোনা নিয়ে প্রথম থেকেই চিনকে দুষছে একাধিক দেশ। চিনের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগও আনেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই এবার ঠিক কিভাবে মানব শরীরে করোনার জীবানু প্রবেশ করল তা খতিয়ে দেখতে চান হু-এর একটি বিশেষজ্ঞ দল। WHO-এর মহামারী বিশেষজ্ঞ ডঃ মারিয়া ভ্যানের কথায়, “ইতিমধ্যেই এ বিষয়ে চিনে WHO-এর শাখায় কর্মরত আধিকারিকদের সঙ্গে তাঁদের আলোচনা হয়েছে। কারণ জানিয়ে সেখানে পর্যবেক্ষণের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে চিনকেও। তবে এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি চিনা বিদেশমন্ত্রক।” যদিও এর আগে করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে চিনে গিয়েছিলেন WHO-এর আধিকারিকেরা। কিন্তু সেবার সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করা যায়নি। জানা গিয়েছিল কোন প্রানীর শরীর থেকে এই ভাইরাসের জীবানু ছড়িয়েছে। কিন্তু কোন প্রানী থেকে তা ছড়িয়েছে, সে তথ্য অজানাই থেকে যায়। এরপরেই হু বিশেষজ্ঞরা দাবি করেন, যতক্ষন না পর্যন্ত এই ভাইরাসের শিঁকড় খুজে না পাওয়া যায়, ততক্ষন প্রতিষেধক আবিষ্কার প্রায় অসম্ভব। 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons