চীন ও হু-এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সাংবাদিক বৈঠকে হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনার মতো মারণ ভাইরাসের জেরে একপ্রকার মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছে ট্রাম্পের দেশ। কিভাবে দেশকে এই মহামারীর কবল থেকে মুক্ত করা যায়, তা নিয়েই কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে আমেরিকা প্রশাসনের। এই পরিস্থিতিতে ফের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও চিনের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদিন তিনি একপ্রকার হুঁশিয়া রিয়ে বলেন, চিন ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে ট্রাম্প বলেন, “চিনে যা হয়েছে, তার কোনও ইতিবাচক দিক নেই। একেবারেই নেই”। একইসাথে চিনের হয়ে কাজ করার জন্য হু কেও কাঠগোড়ায় তুলেছেন তিনি। ইতিমধ্যেই সেবিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হোয়াইট হাউসের তরফে। এমনকি চিনের বিরুদ্ধেও শুরু হয়েছে তদন্ত। এনএসএ, সিআইএ ও ডিফেন্স ইনটেলিজেন্স এজেন্সিকে এই তদন্তের দায়ভার দেওয়া হয়েছে। এদিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমেরিকা ‘হু’-কে অনেক অনুদান দেয়। তা সত্বেও ‘হু’ ভুল বুঝিয়েছে।’

এদিন হোয়াইট হাউসে একটি বিবৃতিতে চিনকে আক্রমণ করে বলা হয়, “চিনের কাজে আমরা অখুশি। এই পরিস্থিতি নিয়েও আমরা যথেষ্ট চিন্তিত। আমরা বিশ্বাস করি ভাইরাস মূলেই বিনাশ করা সম্ভব ছিল”। আরও বলেছেন, “করোনা ভাইরাস গোড়াতেই আটকানো গেলে গোটা পৃথিবীতে সংক্রমণ হত না। অনেকরকমভাবে চিনকে চেপে ধরা যেতে পারে। এই বিষয়ে আমরা গভীরভাবে তদন্ত শুরু করেছি”।

প্রসঙ্গত, করোনা বিধ্বস্ত আমেরিকায় এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৫৫০০০-এর বেশি মানুষ। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। কোন ভাবেই নিয়ন্ত্রনে আনা যাচ্ছেনা সেখানকার পরিস্থিতি। এই মহামারীর জেরে নড়বড়ে হয়ে গিয়েছে ধনশালী দেশ আমেরীকার অর্থনীতিও। 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons