মানুষের পর এবার করোনার কবলে বন্যপশুরা, বাঘের শরীরে মিলল মারণ ভাইরাসের অস্তিত্ব

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : মানুষের পর এবার পশুর শরীরেও মিলল করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব। ইতিমধ্যেই নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানায় একটি বাঘের শরীরে মিলল এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ। তবে শুধুমাত্র বাঘের শরীরেই নয়, আরও বেশ কিছু পশুর শরীরেও পাওয়া গেল এই ভাইরাসের অস্তিত্ব। এই বিষয়টি বড়সড় কোন বিপদের ইঙ্গিত দিচ্ছে বলেই মত বিজ্ঞানীদের। 

করোনার আতুড়ঘর চিনের পর এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের ১০০-এর বেশি দেশে। ইতালি, স্পেন ও ব্রিটেনের মতো মৃত্য়ু মিছিল চলছে আমেরিকাতে। তবে মার্কিন মুলুকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি নিউইয়র্ক শহরে। সেখানে প্রায় কয়েক হাজার মানুষের শরীরে মিলেছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। তবে মানুষের পর এই মারণ ভাইরাসে সেখানে আক্রান্ত হল বন্যপ্রাণীও। এবিষয়ে ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানার বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সমিতির তরফে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, আক্রান্ত ওই বাঘটির বয়স ৪ বছর। দিনকয়েক ধরেই তার শুকনো কাশি হচ্ছিল, সাথে জ্বর ও শ্বাসকষ্টও ছিল। জানানো হয়েছে করোনায় আক্রান্ত ওই বাঘটির নাম নাদিয়া। তবে নাদিয়ার পাশাপাশি করোনার সংক্রমণ মিলেছে তার বোন আজুল, আরও দুটি বাঘ এবং তিনটি আফ্রিকান সিংহের শরীরে। যাতে তাদের থেকে অন্য কোন পশুর দেহে এই সংক্রমণ না ছড়ায়, তাই ইতিমধ্যেই তাদের আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

কিন্তু পশুর শরীরে কীভাবে করোনার সংক্রমণ সম্ভব হল? সেবিষয়েই এখন চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা। তবে চিড়িয়াখানা কর্মীদের থেকেও এই সংক্রমণ ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে আশঙ্কা করা হচ্ছে কর্তৃপক্ষের তরফে। কিন্তু এইভাবে মানুষের শরীর থেকে যদি পশুর দেহে করোনার সংক্রমণ ছড়ায়, তাহলে তা যে মোটেই কোন ভালো ইঙ্গিত না সেটাই এদিন স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের কথায়, এইভাবে সংক্রমণ ছড়ালে তা থেকে রাহাই পাবেনা গৃহপালিত পশু থেকে শুরু করে পথ কুকুর কেউই। যদিও ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানায় আক্রান্ত পশুরা সুস্থ হয়ে যাবে বলেই আশা প্রকাশ করেছেন  চিড়িয়াখানার পশু চিকিৎসকেরা। 

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons