করোনাভাইরাসের দোসর কি এবার হ্যান্টাভাইরাস?

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : একে রামে রক্ষে নেই সুগ্রীব দোসর, করোনাভাইরাসের জেরে জেরবার গোটা বিশ্ব। এরই মধ্যে আর ও এক ভাইরাসের নাম আতঙ্ক বাড়িয়ে দিয়েছে। যার নাম হ্যান্টাভাইরাস । 

 ইতিমধ্যে ভারত ও অন্যান্য দেশে সোয়াইন ফ্ল ও বার্ড ফ্ল এর খবর মিলেছে।এরপর চিন থেকে ফেরত এক ব্য়াক্তির হ্যান্টাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়, যার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। চায়নার গ্লোবাল টাইমস টুইট করেছে যে ইউনান প্রদেশের এই ব্যক্তি সোমবার একটি বাসে কাজের জন্য শানডং প্রদেশে ফেরার পথে মারা যান। বাসে থাকা অন্য ৩২ জন ব্যক্তিকেও ভাইরাসের জন্য পরীক্ষা করা হয়।

রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রসমূহের (সিডিসি) মতে, হ্যান্টাভাইরাস মূলত ইঁদুর দ্বারা ছড়িয়ে পড়ে এবং এটি বিভিন্ন ধরণের রোগের কারণ হতে পারে।

 

এটি রেন্টাল সিনড্রোম (এইচএফআরএস) এর সাথে হ্যান্টাভাইরাস পালমোনারি সিনড্রোম (এইচপিএস) এবং রক্তক্ষরণ জ্বর সৃষ্টি করতে পারে।

এই রোগটি বায়ুবাহিত নয় এবং কেবলমাত্র আক্রান্ত ব্যক্তির প্রস্রাব, মল থেকে ছড়িয়ে পড়ে। এবং ইঁদুরের লালা এর প্রধান উৎসস্থল।সংক্রামিত ব্যক্তির সাথে কম যোগাযোগ করলে  তবেই তা ছড়িয়ে যেতে পারে।

এইচপিএসের প্রাথমিক লক্ষণগুলির মধ্যে মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা, ঠান্ডা লাগা এবং পেটের সমস্যা সহ ক্লান্তি, জ্বর এবং পেশী ব্যথা অন্তর্ভুক্ত। যদি চিকিৎসা না করা হয় তবে এটি কাশি এবং শ্বাসকষ্ট হতে পারে এবং মারাত্মক হতে পারে। এর মৃত্যুর হার ৩৮ শতাংশ। কিডনিতে তীব্র ব্যর্থতা সৃষ্টি করতে পারে এই ভাইরাস।

মানুষের মধ্যে এইচএফআরএস সংক্রমণ অত্যন্ত বিরল। সিডিসি অনুসারে, ইঁদুরের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ হ্যান্টাভাইরাস সংক্রমণ রোধের প্রাথমিক কৌশল।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons