রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর করলেন সুশান্তের বাবা, রইল জরুরী তথ্য

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : সুশান্তের আত্মহত্যা-কাণ্ডে এবার রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর করেছেন প্রয়াত অভিনেতার বাবা। অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা ও মানসিক প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। সমান্তরাল ভাবে মুম্বই পুলিশ এই ঘটনায় তদন্ত করছে। এখনও পর্যন্ত ৪০ জনের বয়ান রেকর্ড করেছে পুলিশ। সেই তালিকায় আদিত্য চোপড়া, সঞ্জয় লীলা বানশালি-সহ অন্যরা রয়েছেন। সম্প্রতি মহেশ ভাট এবং করণ জোহরের ম্যানেজারের বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। আগামি দিনে ডাকা হতে পারে করণ জোহরকেও

 এফআইআর সংক্রান্ত তথ্য:

>২০১৮-এর মধ্যে সুশান্তের মধ্যে কোনও মানসিক অস্থিরতা ছিল না। রিয়া ওর জীবনে আসার পর থেকে কেন অস্থিরতা তৈরি হয়।
 

>সুশান্তের জন্য যে চিকিৎসা চলছিল, তার কোনও অনুমতি পরিবারের থেকে কেন নেওয়া হয়নি
 

>সুশান্তের চিকিৎসকরাও এই ষড়যন্ত্রের অংশ বলে মনে করা হচ্ছে
 

>যখন রিয়া জানতে পারল সুশান্ত মানসিক ভাবে অসুস্থ, তখন ও সুশান্তের পাশে থাকেনি। উল্টে সব কাগজপত্র নিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিল। এটাই তাকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করে বলে মনে করছেন সুশান্তের বাবা
 

>সুশান্তের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের নথি বলছে, ১৭ কোটি টাকা ছিল। সেখান থেকে ১৫ কোটি টাকা এক অপরিচিত অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছিল। সেই অ্যাকাউন্টের সঙ্গে সুশান্তের কোনও সম্পর্ক নেই।
 

> রিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক হওয়ার পর কেন ছবি পাচ্ছিল না সুশান্ত? এটা খুঁজে দেখা দরকার
 

>কুর্গে জৈবকৃষির ব্যবসার উদ্যোগ নিয়েছিল সুশান্ত। সহযোগী ছিলেন বন্ধু মহেশ। কিন্তু এই উদ্যোগে বাধা দেন রিয়া চক্রবর্তী। হুমকি দেন, “চিকিৎসার নথি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করে দেবে। শেষ করে দেবে তাঁর ফিল্ম কেরিয়ার।”
 

>যখন সুশান্ত রিয়ার আপত্তি শোনেনি, তখন ছেলের ক্রেডিট কার্ড, ল্যাপটপ, চিকিৎসার নথি, গয়না নিয়ে চম্পট দিয়েছিল রিয়া: কেকে সিং 
 

>সুশান্তের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছেন তার বাবা। কিন্তু রিয়া, তাঁর সহযোগী ও পরিবার তাকে কথা বলতে দেয়নি
 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons