বিতর্কের মধ্যে রবীন্দ্রভারতী কান্ডে রদ্দুর রায়কে সমর্থনে তসলিমা নাসরিনের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : এবার রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসব ‌যেন এক চর্চিত বিষয়ে পরিণত হয়েছে। সোশ্যল মিডিয়ায় এখনও ঘুরে ঘুরে বেড়াচ্ছে ছাত্রছাত্রীদের গায়ে আবির দিয়ে অশ্লীল শব্দ লেখা ছবি। এই ছবি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই নেটিজেন থেকে শুরু করে প্রতিবাদে গর্জে উঠছেন বাংলার সংস্কৃতিমনস্করা। তবে এই উত্তপ্ত আবহের মধ্যে উল্টো সুর গাইলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। রোদ্দুর রায়ের সমর্থনে এদিন মুখ খুললেন তিনি।

 নিজের স্পষ্টবাদী স্বভাব থেকে এক চুলও না নড়ে এদিন বিখ্যাত ইউটিউবার রোদ্দুর রায়ের হয়ে সাফাই গাইতে শোনা গেল লেখিকাকে। এদিন তিনি প্রশ্ন করেন, “সোশ্যাল মিডিয়ায় মাদক পান করে গান গায় রোদ্দুর রায় । কিন্তু গান গাইলেই তো হয়না, তাঁর আবার বেশ কিছু ভক্তও তৈরি হয়েছে। ‘চাঁদ উঠেছিল গগনে’র ভিডিওতে তো প্রায় ষাট লাখ লাইক পড়েছে। সকলেই রবীন্দ্রসংগীত বিকৃত করছে না। রোদ্দুর রায়ের মতো কিছু লোকেরা তা করছে।তবে এটা একধরনের বাক স্বাধীনতার মধ্যেই পড়ে। তার যা খুশি সে তা বলছে আবার যেভাবে গান গাইতে ইচ্ছে করে, সেভাবে গাইছে। তার কিছু ভক্ত যদি শরীরে তার আওড়ানো গালিগালাজ লিখে ঘোরাফেরা করে, তাতে কার কী?”  

তসলিমা নাসরিন মতে, “দারিদ্র অশ্লীল, ঘৃণা অশ্লীল, প্রতারণা অশ্লীল, যুদ্ধ অশ্লীল, হত্যাকাণ্ড অশ্লীল হলেও মানুষের তৈরি শব্দ অশ্লীল নয়। ‌যে সমস্ত ভদ্রলোকেরা এই শব্দগুলোকে অশ্লীল বলছে, তাঁরাই মনে মনে এই ‌শব্দগুলি বহুবার বলে থাকেন। তবে ঘরে বাইরে এই শব্দগুলি বারংবার উচ্চারন করলেও তা লেখেন না। বাইরে থেকে সকলকেই একটা নকল হাসি, নকল সাজ ও নকল সমাজ দেখাতে চায় সকলেই”। লেখিকার কথায়, এই পরিবর্তিত মানসিকতা হঠাৎ করেই আসেনি। আমরা সকলে মিলেই তা একটু একটু করে পরিবর্তন করেছি।

তবে লেখিকার এই কথা গুলি ‌যে শুধুমাত্র রোদ্দুর রায়কে সমর্থন করেই বলা তা নয়, আজকের সমাজব্যবস্থা, মানুষের চিন্তাধারণাও ‌যে রবীন্দ্রভারতীর এই ঘটনার জন্য দায়ী তাও তিনি তাঁর কথার মাধ্যমে বোঝাতে চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বসন্ত উৎসবের দিন কয়েকজন তরুণ-তরুণীর ছবি ভাইরাল হয় সোশ্যাল মি‌ডিয়ায়। সেই ছবিতে দেখা ‌যায়, চারজন তরুণীর পিঠে লেখা ইউটিউবার রোদ্দুর রায়ের বিকৃত রবীন্দ্রসংগীত ‘..চাঁদ উঠেছিল গগনে’র লাইন। এবার তা নিয়েই বর্তমান দিনের শিক্ষিত সমাজরকে একহাত নিলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons