সৌমিত্রের বাড়ছে সঙ্কট! পুরাতন ক্যানসার থাবা গেড়েছে মস্তিষ্কে ফুসফুসে

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : ভালো নেই ফেলুদা। পরিস্থিতি ক্রমশই সঙ্কটজনকের দিকেই এগোচ্ছে। মারণ ভাইসার তাঁর শরীরে তো বটেই মস্তিষ্কেও প্রভাব ফেলতে শুরু করে দিয়েছে। যার জেরে এখন কার্যত অচেতন অবস্থায় রয়েছেন তিনি। তবে শরীরের অস্থিরতা কমেনি, বরঞ্চ তা অনেকটাই বেড়েছে। জ্বর কমারও লক্ষ্মণ দেখা যাচ্ছে না। পাশাপাশি তাঁকে এখন ভেন্টিলেশন সাপোর্টেই রাখা হয়েছে। মস্তিষ্কের নিউরোলজিক্যাল পরিস্থিতিও ভালো নয়। আর এই সবকিছুই এখন চিন্তা বাড়াচ্ছে অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকদের। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন নিজে ফোন করে সৌমিত্রবাবুর স্বাস্থ্যের খবরাখবর নেন। তাঁর নির্দেশে দুইজন সরকারি চিকিৎসক ও মেডিকেল বোর্ডে যোগ দিয়েছেন। সব মিলিয়ে ১৫জন চিকিৎসক এখন এই বর্ষীয়াণ অভিনেতার চিকিৎসায় নজর দিয়েছেন। বেসরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে পুরাতন ক্যানসার আবারও ফিরেছে অভিনেতার শরীরে।
 
এদিন হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, সৌমিত্রবাবুর স্নায়ু ও মস্তিষ্কের অবস্থা জানার জন্যই এদিন তাঁর এমআরআই করা হয়। কিন্তু সেখানে গুরুতর কিছু পাওয়া যায়নি। দিনের অধিকাংশ সময়েই তিনি হয় ঘুমাচ্ছেন নতুবা অচেতন অবস্থায় থাকছেন। যেটুকু সময় তাঁর চেতনা থাকছে সেই সময় খুবই দুর্বল থাকছেন। অচেতন অবস্থায় খুবই বেশি হাত-পা ছুঁড়ছেন। এটাই এখন তাঁর মুখ্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে মন্দের ভালো এটাই যে তাঁর শরীরের অন্যান্য অংশ ঠিকঠাক কাজ করছে। এখনও তাঁকে আইটিইউতেই রাখা হয়েছে তবে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রাখা হয়েছে তাঁকে। করোনার জেরে শ্বাসকষ্ট না-থাকলেও ফুসফুসের উপর চাপ কমাতে মাঝেমধ্যেই অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে তাঁকে। তবে, চিকিৎসকদের তরফে জানানো হয়েছে, প্রবীণ অভিনেতাকে লাইফ সাপোর্ট বা রক্তচাপ সাপোর্ট না দিতে হলেও অক্সিজেন লেভেল ঠিক রাখতে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দিতে হচ্ছে।
 
সৌমিত্রবাবুর মেয়ে পৌলমী জানিয়েছেন, ‘বাবা খুব ভালো আছে, এমন নয়। কিন্তু ওঁকে জীবনদায়ী ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে বলে যে বিভ্রান্তিমূলক খবর মাঝেমধ্যেই ছড়াচ্ছে, তা-ও ঠিক নয়। ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ অরিন্দম করের নেতৃত্বাধীন ১৫ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড বাবার চিকিৎসা করছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে সরকারি দুই চিকিৎসক, ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ বিভূতি সাহা ও সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ যোগীরাজ রায়ও সেই বোর্ডে যোগ দিয়েছেন। বাবার মস্তিষ্কে করোনা জনিত সংক্রমণের কারণে তৈরি হওয়া স্নায়ু অস্থিরতাই এখন তাঁর শারীরিক পরিস্থিতি সংকটজনক করে তুলেছে।  তবে এখনো তার শরীরের সমস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ভালো পর্যায়েই রয়েছে। সেগুলি স্বাভাবিক কাজকর্ম করছে।’ যদিও সোমবার রাতের দিকে বেসরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনায় আক্রান্ত সৌমিত্রের প্রস্টেট ক্যানসার নতুন করে ছড়িয়েছে তাঁর ফুসফুস এবং মস্তিষ্কে। 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons