সোমবার বিকেল থেকে কাযর্করী লকডাউন-এর আওতায় কোন কোন স্থান?

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : করোনা থেকে বাঁচাতে হবে দেশকে এটাই এখন মূল লক্ষ্য । সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙতে হবে । আর সেজন্য আংশিক লকডাউনের পথে হাঁটল রাজ্য সরকার। সোমবার বিকেল পাঁচটা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে লকডাউন শুরু হবে। তা চলবে আগামী ২৭শে মার্চ শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত।

 

রবিবার নবান্নের তরফে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, তাতে জানানো হয়েছে রাজ্যের ছ’টি জেলায় পুরোপুরি লকডাউন করা হবে। সেই জেলাগুলি হল – উত্তর দিনাজপুর, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, পশ্চিম বর্ধমান ও হাওড়া।

 

কেন্দ্রের তরফ থেকে সমস্ত করোনা আক্রান্ত জেলাগুলিই লকডাউন করে দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। সেইমতো কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনা জেলা লকডাউন করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল রাজ্যের কাছে। এরপর রাজ্য সিদ্ধান্ত নেয় পুরো উত্তর ২৪ পরগনা জেলা লকডাউন করা হচ্ছে না। কলকাতা সহ ১২৫টি পুরনিগম এলাকা গুলি লকডাউন করার ঘোষণা করেছে রাজ্য।

 

রাজ্যের যে যে এলাকায় লকডাউন কার্যকরী হবে –

কোচবিহার : সদর শহর।

আলিপুরদুয়ার : সদর শহর ও জয়গাঁ।

জলপাইগুড়ি : সদর শহর।

কালিম্পং : সদর শহর।

দার্জিলিং : সদর শহর, কার্শিয়াং ও শিলিগুড়ি শহর।

উত্তর দিনাজপুর : পুরো জেলা।

দক্ষিণ দিনাজপুর : সদর শহর।

মালদা : পুরো জেলা।

মুর্শিদাবাদ : পুরো জেলা।

নদিয়া : পুরো জেলা।

বীরভূম : সব পুরসভা এলাকা।

পশ্চিম বর্ধমান : পুরো জেলা।

পূর্ব বর্ধমান : সদর শহর, কালনা টাউন ও কাটায়ো টাউন।

পুরুলিয়া : সদর শহর।

বাঁকুড়া : সদর শহর, বড়জোড়া টাউন, বিষ্ণুপুর টাউন।

পশ্চিম মেদিনীপুর : সদর শহর, খড়্গপুর টাউন ও ঘাটাল।

ঝাড়গ্রাম : সদর শহর।

পূর্ব মেদিনীপুর : সদর শহর, হলদিয়া, দিঘা, কোলাঘাট ও কাঁথি।

হাওড়া : পুরো জেলা।

হুগলি : সদর শহর, চন্দননগর, কোন্নগর, আরামবাগ, শ্রীরামপুর ও উত্তরপাড়া।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা : ডায়মন্ড হারবার, ক্যানিং, সোনারপুর, বারুইপুর, ভাঙড়, বজবজ, মহেশতলা।

উত্তর ২৪ পরগনা : সল্টলেক, নিউ টাউন-সহ সব পুরসভা এলাকা।

কলকাতা : কলকাতা পুরনিগমের অন্তর্গত সব এলাকা।

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons