পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর নাম করে জালিয়াতি, হাতিয়ে নেওয়া হল ৫৫ হাজার টাকা

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : রূপলি পর্দায় নায়িকা হয়ে ওঠার স্বপ্ন অনেকেই দেখেন। কিন্তু এই স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করতে হিমশিম খেতে হয় সকলকেই। কারন স্বপ্ন ও বাস্তবের মধ্যে একটা বড়ো দূরত্ব রয়েছে। আর স্বপ্ন পূরনের নেশায় মেতে তা ‌যেন ভুলেই ‌যান আনেকে। তাই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের ভুলও করে ফেলতে দেখা ‌যায় তাঁদের। এবারও ঘটল এমনি এক ঘটনা। এবার চুঁচুড়ার এক গৃহবধূ অর্পিতা দাসকে সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে প্রায় ৫৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিল এক প্রাতারক।

প্রাতারিত ওই গৃহবধূ কলকাতার মধ্যমগ্রাম থানার দোলতলার বাসিন্দা। মাস কয়েক আগে ফেসবুকে এক ব্যক্তের সাথে বন্ধুত্ব হয় অর্পিতা দাসের। ওই ব্যক্তি নিজেকে রাজ চক্রবর্তী বলে পরিচয় দেয়। প্রায় প্রতিদিনই অর্পিতা দেবীর সাথে তিনি চ্যাটিং করতে থাকেন। তারপরেই হঠাৎ করে ওই গৃহবধূর মেয়েকে সিনেমায় সু‌যোগ করে দেওয়ার কথা বলেন। মেয়েকে রূপলি পর্দায় সেলিব্রিটি বানাতে ‌যেন মায়ের উৎসাহের আর শেষ নেই। তবে রাজ চক্রবর্তীর পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি জানান, তাঁর পরবর্তী সিনেমায় অভিনয় করার সুযোগ করে দেওয়র জন্য প্রাথমিকভাবে ৫৫ হাজার টাকা দিতে হবে অর্পিতা দেবীকে। কিন্তু মেয়ের জীবনে এতবড় সু‌যোগের কথা চিন্তা করে কিছু না ভেবেই দাবি মতো ৫৫ হাজার টাকা ওই ব্যক্তিকে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।  

কিভাবে এই টাকা তিনি দেবেন তা জানতে চাইলে অর্পিতা দেবীকে চুঁচুড়া পুলিশ লাইনে এসে এক পুলিশ অফিসারের হাতে ওই টাকাটা দিতে বলে ওই ব্যক্তি। তাতেও কোনরকম সন্দেহ হয়নি ওই গৃহবধূর। এরপরেই বৃহস্পতিবার দুপুরে চুঁচুড়া পুলিশ লাইনে পৌঁছান তিনি। পুলিশ লাইনের ঠিক উলটোদিকে আদালতের বারান্দায় সুমনবাবুর নামে ওই ‘ভুয়ে’ পুলিশ অফিসারের হাতে ৫৫ হাজার টাকা তুলে দেন অর্পিতা দেবী।

সেখানে কথোপকথন চলাকালীন অর্পিতা দেবীর চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে ‌যায় ওই প্রতারক। ঘটনার পর থেকেই বহুবার ‘ভুয়ো’ রাজ চক্রবর্তী ও সুমনের সাথে ফোনে ‌যোগা‌যোগ করেন। কিন্তু বার বার ফোন ‘সুইচড অফ’ পেয়ে অবশেষে চুঁচুড়া থানায় প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেন অর্পিতা দাস। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে  পুলিশ।

Inform others ?
Share On Youtube
Show Buttons
Share On Youtube
Hide Buttons
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
Facebook
YouTube