দুর্গাপুজোয় অসাধারণ কাজ করেছে রাজ্য! জানালো কলকাতা হাইকোর্ট

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : পুজো নিয়ে বিরোধীদের আক্রমণকে ভোঁতা করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। দুর্গাপুজোর আগে কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের হওয়া মামলার পরিপ্রেক্ষিতে পুজোর আগেই দর্শকশূণ্য মণ্ডপ রাখার রায় দিয়েছিল হাইকোর্ট। সেই মামলারই এদিন ছিল পরবর্তী শুনানি। সেই শুনানিতেই হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চের অভিমত, ‘দুর্গাপুজোয় অসাধারণ কাজ করেছে রাজ্য সরকার। তবে দুর্গাপুজোর মতোই বিধিনিষেধ মেনে হোক কালীপুজো।’ এদিনের মামলার সঙ্গে আরও দুটি মামলার শুনানি হয়। কালিপুজো, ছটপুজো, জগদ্ধাত্রী পুজো বন্ধ করতে চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টে আরও দুটি পৃথক মামলা দায়ের হয়। সেই দুই মামলার শুনানিও এদিন দুর্গাপুজোর মূল মামলার সঙ্গে হয়। সেখানেই রাজ্যের ভূমিকায় বেশ সন্তোষ প্রকাশ করেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়।  

এদিন মামলার শুনানিতে নতুন করে কালিপুজোর মামলাও জোড়া হয় মূল পুজোর মামলার সঙ্গে। বিচারপতি তখনই জানান মূল মামলার সঙ্গেই ওই মামলাগুলিরও শুনানি চালিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে এমনটাই জানান বিচারপতি। দুর্গাপুজোর মতো কালীপুজো, কার্তিকপুজো, ছটপুজো, জগদ্ধাত্রীপুজো ও বড়দিনেও কড়াকড়ি অব্যাহত থাকুক এমন বিধিনিষেধ চেয়ে আবেদন জানানো হয়েছে হাইকোর্টে। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে দায়ের হওয়া ওই মামলার শুনানিতেই এদিন দুর্গাপুজোয় বিধিনিষেধ নিয়ে রাজ্য সরকারের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়। বিচারপতি বলেন, ‘পুজো-নির্দেশ বাস্তবায়নে রাজ্যের ভূমিকা অনুকরণীয়। অসাধারণ কাজ করেছে রাজ্য। কোথাও কোথাও কিছু বিক্ষিপ্ত ঘটনা ঘটেছে, তবে সার্বিকভাবে রাজ্য ভাল কাজ করেছে। সরকারের ইতিবাচক পদক্ষেপের জন্যই দুর্গাপুজোয় রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে পারেনি।’
 
এরপরেই বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘দুর্গাপুজোর মতোই বিধিনিষেধ মেনে হোক কালীপুজো। বাজি নিয়ে রাজ্যবাসীর প্রতি সরকার যে আবেদন করেছে, তা সকলের মানা উচিত। করোনা মানুষের শ্বাসযন্ত্রের ক্ষতি করে। বাজির দূষণে সেই ক্ষতি আরও বাড়তে পারে।’ উল্লেখ্য মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের তরফে সাধারণ মানুষের উদ্দেশে কালীপুজোয় বাজি না ফাটানোর আবেদন জানানো হয়। মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কালীপুজো ও দীপাবলিতে বাজি ফাটাবেন না, আবেদন, বাজি থেকে যে দূষণ ছড়ায় সেই দূষণ কোভিডের ক্ষেত্রে অত্যন্ত মারাত্মক, বিসর্জনের শোভাযাত্রা নয়।’ প্রসঙ্গত, বিধিনিষেধ সংক্রান্ত মামলার পাশাপাশি, কালীপুজোয় বাজি নিষিদ্ধ করার আর্জি জানিয়ে আরেকটা জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয় হাইকোর্টে। আবার এদিনই বাজি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে রাজ্য সরকারের বৈঠক রয়েছে নবান্নে। তবে এখনই কেউ নিষেধাজ্ঞা জারি করতে চায় না। হাইকোর্টে বাজি মামলার শুনানিতে কী হয়ে এখন সেটাই সবাই দেখতে চাইছেন। তবে এদিন নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠক করার সময় সুষ্ঠুভাবে দুর্গাপুজো করার জন্য রাজ্যের সব ক্লাবকর্তা, পুজো কমিটি এবং পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons