চুরির সামগ্রী বিক্রির জন্য ওএলএক্স-এ বিজ্ঞাপন, ধৃত অভিযুক্ত

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : অভিনব চুরির ছক কষে অভিনব পদ্ধতিতে তা বিক্রি করার জন্য এ ‌যেন এক নতুন পন্থা। ‌যদিও সেই উদ্দেশ্য শেষ প‌র্যন্ত কা‌র্যকর হয়নি। সোনারপুর থানার পুলিশের তৎপরতায় হাতে নাতে ধরা পড়লেন মূল অভি‌যুক্ত সহ তার আরও একজন সহ‌যোগী। তাদের থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দামি ক্যামেরা সহ আরও বহু জিনিসপত্র।

গত ৪ ফেব্রুয়ারি সোনারপুরের একটি বাড়িতে সহ‌যোগীদের নিয়ে কাজ করতে ‌যান কলকাতার বেলেঘাটার বাসিন্দা সৌরিশ বাসু। বিয়ে বাড়ির কাজ সমাপ্ত হলে ক্যামেরা ও আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র গুছিয়ে রেখে সকলে মিলে রাতের খাবার খেতে ‌যান। অভি‌যোগ, সেই সু‌যোগেই কে বা কারা তাঁদের ক্যামেরার ব্যাগ নিয়ে চম্পট দেন। সারা রাত ধরে খোঁজা খুজি করে সেগুলি না মেলায় সোনারপুর থানায় লিখিত অভি‌যোগ দায়ের করেন সৌরিশ।

অভি‌যোগের ভিত্তিতে মাঠে নামতেই উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সোনারপুর থানার পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় অভি‌যান তল্লাশি চালানোর পাশাপাশি পুরাতন সামগ্রী ক্রয়-বিক্রয়কারী সংস্থা ওএলএক্সের বিজ্ঞাপনের ওপরও নজরদারি শুরু করে। দিন দুয়েকের মধ্যেই সেই চুরি ‌যাওয়া ক্যামেরার বিজ্ঞাপন চোখে পড়ে তদন্তকারী অফিসারদের।

বিজ্ঞাপনের সুত্র ধরে শনিবার গড়িয়ার শহীদ ক্ষুদিরাম মেট্রো স্টেশনের কাছে থেকে ধরে ফেলেন আব্দুল রফিক নামের এক ব্যক্তিকে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই জানা ‌যায় ঘটনার সাথে জড়িত মূল অভি‌যুক্তের নাম। অর্নব ভৌমিক নামে ওই মূল অভি‌যুক্ত কন্দর্পপুরের বাসিন্দা। তবে এটাই প্রথমবার নয়, এর আগেও বিয়ে বাড়ি থেকে দামি সামগ্রী চুরি করেছে অর্নব, এমনটাই জানতে পেরেছে পুলিশ।

ধৃত দুজনকেই রবিবার মহকুমা আদেলতে তোলা হবে। তবে পুলিশের তৎপরতায় খোয়া ‌যাওয়া ক্যামেরা সহ দামি সামগ্রী ফিরে পাওয়ায় বেশ খুশি সৌরিশবাবু। এইভাবে ইতিবাচকভাবে তদন্ত চালিয়ে তাঁর জিনিসপত্র উদ্ধার করায় সোনারপুর থানার পুলিশকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons