চলতি অর্থবর্ষে আর্থিক বৃদ্ধির হার কমল ৭.৭ শতাংশ

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : বর্তমান অর্থবর্ষের বাজেট অধিবেশন শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই। শুক্রবার পেশ হল চলতি অর্থবর্ষের অর্থনৈতিক সমীক্ষার রিপোর্ট। রিপোর্টে দেখা গেছে ২০২০-২১ অর্থবর্ষে আর্থীক বৃদ্ধির হার কমেছে ৭.৭ শতাংশ। এরফলে সঙ্কুচিত হবে অর্থনীতি। তবে এর সাথে সাথে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ জানান, আগামী অর্থবর্ষে আর্থিক বৃদ্ধির হার হবে ১১ শতাংশ। তবে তাতেও এই ঘাটতি কতটা পূরণ হবে তা নিয়ে চিন্তায় বিশেষজ্ঞরা।

৯ এর দশকে ভারতে মুক্ত অর্থনীতি চালু হওয়ার পরও এখনও প‌র্যন্ত দেশে সর্বাধিক বর্ষিক আর্থিক বৃদ্ধির হার হয়েছে ৮ শতাংশ। তবে কেন্দ্রের দাবি আগামী বছর তা পৌঁছবে ১১ শতাংশে। প্রসঙ্গত, ২০২০ তে লকডাউন এবং করোনা অতিমারীর জেরে বহুল পরিমাণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অর্থনীতি। এরফলে বিশ্ব ব্যঙ্কের সমীক্ষায় বলা হয়েছিল ভারতীয় অর্থনীতিতে ২০২০-২১ অর্থবর্ষে আর্থিক বৃদ্ধির হার কমবে ১০ শতাংশ। তবে সেই তুলনায় ৭.৭ শতাংশ বেশ কম, ও খানিকটা স্বস্তির।

এই বিষয়ে বিশীষ্ট অর্থনীতিবীদ সুমন মুখোপাধ্যায় জানান, বিশ্বব্যাঙ্কের ভবিষ্যৎবাণী থেকে তুলনামুলক ভালো অবস্থায় আছে ভারতীয় অর্থনীতি। এবছর আশার থেকে অনেক ভালো রিভার্সাল হচ্ছে। আগামী অর্থবর্ষের হিসেব করলে দেখা ‌যাচ্ছে গড়ে ৪ শতাংশ বাড়বে আর্থিক বৃদ্ধির হার। এই বছর দেশে বাণিজ্যিক ট্রেন্ড ভালো আছে।

দেশে অর্থনৈতিক দিক থেকে প্রায় সবকটি ক্ষেত্র আশাতীত উন্নতি করেছে। দেশব্যপী লকডাউন সত্ত্বেও অটোমোবাইল সেক্টর, এনার্জি সেক্টর, পাওয়ার সেক্টরগুলির ব্যয় বেড়েছে। কিছু সংস্থা বাদে মারুতি, হুন্ডাই, টাটা, টয়োটা, হন্ডার মত সংস্থাগুলির ব্যবসা উন্নতি করেছে। এনার্জি কনসাম্পশন বেড়েছে প্রায় ৫০শতাংশ। এছাড়া গত চার মাসে দেশে শুধুমাত্র জিএসটি সংগ্রহ হয়েছে এক থেকে ১.৫ ট্রিলিয়ন। এটি এখনও প‌র্যন্ত সর্বাধিক অঙ্ক।  

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons