গ্রীন জোনে চলবে বাস, খুলবে দোকান বৈঠকে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : গ্রীনজোনে খুলতে পারে ছোটো দোকান, চলবে বাস- জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী সোমাবার থেকে ‌যে সমস্ত গ্রীন জোন আছে সেখানে পুলিশি সার্ভে করে একটি এলাকায় একটি দোকানই খোলা হবে। ইলেকট্রনিক ইকুইপমেন্টের দোকান, বই ও স্টেশনারি দোকান, হার্ডওয়্যারের দোকান খুলতে পারবে। তবে কনটেইনমেন্ট জোনে কোনো রকম বদল আসবেনা। সেখানে থাকবে কড়া লকডাউন।

রাজ্যে ৫১ টি বেসরকারি হাসপাতাল নেওয়া হয়েছে, ‌যেখানে সরকারি খরচে হবে করোনা চিকিৎসা। তবে অন্যান্য বেসরকারি হাসপাতালও চাইলে কাজ করতে পারে, সেক্ষেত্রে প্রশাসনের তরফ থেকে সাহা‌য্য করা হবে।

সোমবার থেকে গ্রীন জোনে খুলবে খুচরো দোকান। ‌যে সমস্ত এলাকায় ইলেকট্রনিক ইকুইপমেন্টের দোকান, বই ও স্টেশনারি দোকান, হার্ডওয়্যারের দোকান ও চায়ের দোকান একটি করেই আছে সেক্ষেত্রে খোলা ‌যাবে দোকান। তবে তার আগে এলাকার পুলিশ সেই এলাকা দেখে নির্দিষ্ট করে দেবে কোন দোকান খোলা ‌যাবে।

এই সমস্ত দোকান হোম ডেলিভারি করতে পারবে। গ্রীন জোন গুলিতে ইতিমধ্যেই জুট কারখানা ও স্টিল কারখানা গুলি খুলেছে। অন্যান্য এলাকায় শুরু হবে কনস্ট্রাকশানের কাজ। চা বাগানে কাজ করা ‌যাবে তবে ২৫ শতাংশ কর্মী নিয়ে। ফরেস্ট প্রোডাকশনের কাজ হবে। সেক্ষেত্রে তাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করার ব্যবস্থা করবে প্ৰশাসন।

তার সাথে এও জানান, গ্রীনজোনে চলতে পারে বেসরকারি বাস। তবে সেক্ষেত্রে ‌যাত্রী সংখ্যা সীমিত থাকবে ২০ জনে। ২০ জনের বেশি ‌যত্রী নেওয়া ‌যাবেনা। এবং বাস চালক বা মালিকদের এলাকার প্রশাসনিক আধিকারিকদের থেকে অনুমতি নিতে হবে। এবং এক জেলার বাস অন্য জেলায় ‌যেতে পারবেনা।

বৈঠকে ‌যা ‌যা বললেন –

  • কোটায় আটকে পড়া প্রায় আড়াই হাজার ছাত্র ছাত্রীকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।
  • রাজ্যে মাস্ক পড়া আবশ্যকীয়। সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং এর ওপর জোর দেওয়ার কথা বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
  • লকডাউন এখনই উঠবেনা, বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। আরও কিছুদিন বাড়িতে থাকার আর্জি জানিয়েছএন তিনি।
  • কেন্দ্রের কাছে স্বচ্ছ নির্দেশিকা চাওয়া হয়েছে।
  • সরকারের তরফ থেকে ৫১ টি বেসরকারি হাসপাতালে সরকারি খরচে করোনা চিকিৎসা করা ‌যাবে।
  • তবে অন্য বেসরকারি হাসপাতাল ‌যদি কাজ করতে চায় তা করতে পারে।
  • নতুন অ্যাপে চলবে সীমিত পরিমান ট্যাক্সি, সীমিত সংখ্যক ‌যাত্রী নিয়ে চলবে ট্যাক্সি।
  • সোমবার থেকে সমস্ত গ্রীন জোনে খুলবে ছোটো দেকান।
  • ইলেকট্রিক ইকুইপমেন্ট, রং-এর দোকান, বইয়ের দোকান, স্টেশনারি দোকান, হার্ডওয়্যারের দোকান, লন্ড্রী, চা-পান-বিড়ির দোকান খুলতে পারে গ্রীন জোনে। হোম ডেলিবারির ব্যবস্থাও রাখতে হবে।
  • গ্রীন জোনে চলতে পারে বেসরকারি বাস, ২০ জন এর বেশি ‌যাত্রী নেওয়া ‌যাবেনা সেই ক্ষেত্রে।
  •   গ্রীনজোনে কনস্চ্রীকশনের কাজও শুরু করা ‌যাবে। সেক্ষেত্রে কেন্দ্রের নির্দেশ পালন করতে হবে ‌যথা‌যথ ভাবে।
  • ফরেস্ট প্রোডাকশনে সমস্ত দ্রব্য উৎপাদন হবে, সেই ক্ষেত্রে পণ্য বিক্রি করার ব্যবস্থা করবে সরকার।
Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons