মেডিক্যাল কলেজে অগ্রাধীকার করোনা আক্রান্তদের

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : কলকাতা মেডিক্যাল কলেজকে করোনার চিকিৎসাস্থল হিসাবে গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই সেখানে এই কাজ প্রায় শেষের মুখে। শনিবার থেকে রোগী ভর্তি শুরু হয়ে যাবে। ভেন্টিলেশন ও সিপিইউতেও সোমবার থেকে শুরু হবে রোগী ভর্তি। প্রাথমিকভাবে সেখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য মোট ৩০০ টি বেডের ব্যবস্থা করা হলেও পরে তা বাড়িয়ে ৩০০০ করা হবে বলে জানানো হয়েছে মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে। কিন্তু এই মুহূর্তে সকলের কাছে এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, বর্তমানে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে যাঁরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং যাঁরা করোনা ছাড়ে অন্য কোন রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার জন্য আসবেন তাঁদের কী হবে?

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, সকলকেই ধাপে ধাপে অন্য হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে এরই মধ্যে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের আরেক ছবি প্রকাশ্যে আসে। বর্তমানে এখানে রোগীদের রীতিমতো নাজেহাল হতে হচ্ছে। ক্যান্সারে আক্রান্ত বছর ৮-এর এক মেয়ে। মা-বাবার সাথে চিকিৎসার জন্য সে এসেছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে। কিন্তু সেখানে এসে তাঁরা দেখেন মেডিক্যাল কলেজ বন্ধ। অসসুস্থ মেয়েকে নিয়ে মা-বাবা কোথায় যাবেন? কীভাবে সুস্থ করবেন মেয়েকে তাই নিয়েই পড়েছেন দুশ্চিন্তায়।

তবে তাঁরাই একা নন। এদিন সাতসকালে ক্যান্সার আক্রান্ত এক বৃদ্ধ রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট নিতে আসেন, কিন্তু তাঁকে রিপোর্ট না দিয়েই বাড়ি চলে যেতে বলা হয়। কলকাতা ম্যডিকেল কলেজে নিয়মিত আসা নৈহাটির এক ক্যান্সার আক্রান্ত ব্যক্তিও মঙ্গলবার হাসপাতালে আসেন। কিন্তু সেখানে তিনি টিকিট পাননি। 

ক্যান্সারের মতো মেডিক্যাল কলেজের বাকি বিভাগেরও চিত্রটা একই। যারা ভর্তি রয়েছেন তাঁদেরকে অন্য কোথাও স্থানান্তরিত করার কথা বলা হলেও নতুন করে আর কাউকে ভর্তিও নেওয়া হচ্ছেনা। কিন্তু এই অবস্থায় তাঁরা কোথায় যাবেন তা নিয়েই বিপাকে পড়েছেন রোগী ও তাঁদের পরিবারের।

 

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons