করোনা আক্রান্তের মরদেহ পাবেনা পরিবার, দ্রুত সৎকার করার নির্দেশ মমতার

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : সোমবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজ্যে প্রথম মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে এসেছে। কিন্তু সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ভয়ে মৃতদেহকে শেষবারের মতো দেখতেও দেওয়া হয়নি পরিবারের সদস্যদের। খবর জানার পরেই তাঁকে দ্রুত সৎকারের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এমনকি সৎকারের ক্ষেত্রেও রয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ। 

আক্রান্ত ওই রোগীর ফুসফুস থেকে যাতে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে না পড়ে তাই মৃতদেহের পোস্টমর্টেম বা অটোপসি মা করার পরামর্শ দেয়কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এমনকি মর্গেও ওই ভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির মৃতদেহ ৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেটের নীচে সংরক্ষণ করা প্রয়োজন। এখানেই শেষ নয়।  যে ঘরে ওই মৃত রোগীর চিকিৎসা চলছিল সেই ঘর এবং সেই ঘর থেকে যে দিকে তাকে বের করে নিয়ে যাওয়ার জন্য যে সমস্ত ফ্লোর, সিলিং, দেওয়াল, বেড, ইকুইপমেন্টস ইউজ করা হয়ে ছিল তা বিশেষ সলিউশন এবং ফিউমিকেশন করতে অর্থাৎ জীবাণুমুক্ত ভাইরাস মুক্ত করতে হবে। এদিন লীয় বৈঠক চলাকালীনই আমরি হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন ওই ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পান মুখ্যমন্ত্রী। তখনই সব কাজ ছেড়ে তিনি পুলিস কমিশনার অনুজ শর্মাকে মৃতদেহ দ্রুত সৎকারের নির্দেশ দেন।

যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়াতে না পারে তাই জীবাণুরোধক ব্যাগের মধ্যে মৃতদেহকে ঢুকিয়ে ভাল করে বেঁধে দেওয়া হয়। এমনকি যাঁরা সেই মৃতদেহ বহন করবেন তাঁদেরকেও বিশেষ ধরনর মাস্ক, হেলমেট, গায়ের পোশাক, পায়ের জুতো পরতে হবে। তবে সৎকারের জন্য নিয়ে যাওয়ার পূর্বে ব্যাগ খুলে মৃতের মুখ দেখিয়ে দেওয়া হবে পরিবারের লোকজনদের। এরপর বডি পোড়ানো বা কবর দেওয়া হবে। তার পর সেই যায়গাটিও ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। তবে চাইলে পরিবারের তরফে সৎকারের শেষে অস্থি ভষ্ম নিতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে। 

 

 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons