ইডির দফতরে করোনার থাবা! ৬ আধিকারিকের শরীরে মিলল সংক্রমণ

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : মারণ ভাইরাস করোনার জেরে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন দেশবাসী। এবার করোনা থাবা বসালো এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডির দফতরে। এই দফতরের ৬ আধিকারিকের শরীরে মিলল করোনার সংক্রমণ। পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পরেই ইডির প্রধান কার্যালয় ‘সিল’ করা হয়েছে। সংক্রমণ রুখতে গোটা বিল্ডিংটি স্যানিটাইজ করা হবে।

দেশে জুড়ে ৫.০ দফায় চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্র সরকারের তরফে বহু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। যার ফলে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে সংক্রমণের সংখ্যা। ইতিমধ্যেই দেশে সংক্রমণের সংখ্যা ২ লক্ষ ছাড়িয়েছে। সেই পরিস্থিতে মারণ ভাইরাসের কবল থেকে রেহাই পেলনা ইডির দফতর। ইডির ৬ আধিকারিকের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে বলে খবর। পুরো বিল্ডিংটি সিল করা হয়েছে সংক্রমণ মুক্ত করতে। এছাড়া ৬ জন সংক্রমিত আধিকারিকের সংস্পর্শে আসা বাকি ১০ জন আধিকারিককে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু কিভাবে ঘটল এই সংক্রমণ! জানা গিয়েছে কিছুদিন আগেই ইডির সদর দফতরে কর্মরত এক আধিকারিকের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মেলে। তাঁর থেকেই এই সংক্রমণ ঘটেছে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

তবে বর্তমানে সবচেয়ে চিন্তার বিষয় হল, উপসর্গহীন করোনা। এখন যাঁরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন তাঁদের মধ্য়ে অধিকাংশই উপসর্গহীন। ফলে তাঁদের চিহ্নিত করা কঠিন হচ্ছে। সংক্রমণ ধরা না পড়ায় তাঁরা তাঁরা জনসাধাণের সাথে অবাধে মিশছেন এবং সংক্রমণের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। 

শনিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে পাওয়া তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা গত সমস্ত রেকর্ডকে ছাপিয়ে গেছে। শুক্রবার যেখানো ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ৮৫১ জন। শনিবার সেই রেকর্ড ভেঙে সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়াল ৯ হাজার ৮৫১ জন। যার জেরে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হল ২ লক্ষ ৩৬ হাজার ৬৫৭ জন। তাঁদের মধ্যে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৯৪২ জন মানুষ। করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৭৩ জন। তবে শুধু আক্রান্ত নয় পঞ্চম দফার লকডাউনে মৃতের সংখ্যাও অনেকটা বেড়েছে। ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছে ২৯৪ জন। যার ফলে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৬ হাজার ৬৪২। সংক্রমনের নিরিখে ইতিমধ্যেই ইতালিকে টপকে ষষ্ঠ স্থান দখল করল ভারত। 

 

Inform others ?
Show Buttons
Hide Buttons