আমফানের ক্ষত দগদগে, ফের বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিতে ভাসতে চলেছে রাজ্যে

নিউজটাইম ওয়েবডেস্ক : আমফানের জেরে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকার ক্ষত এখনও দগদগে। এরইমধ্য়ে বুধবার সেই ক্ষতে নুনের মতো কাজ করেছে কলকাতা সহ দক্ষিনবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে হওয়া ঝড়বৃষ্টি। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ফের মুখভার আকাশের। কোন কোন এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিও হচ্ছে। হাওয়া অফিস সুত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার গোটা দিনই আকাশের অবস্থা এরকমই থাকবে। কলকাতা সহ দক্ষিনবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতার সুত্রে জানা গিয়েছে, বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির পাশাপাশি ৪০-৫০ কিলোমিটার বেগে বয়ে যাবে ঝড়ো হাওয়া। এই ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মূলত কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুরে। এদিন পুরো দিন জুড়েই আবহাওয়া একইরকম থাকবে বলেই দাবি করেছেন আবহাওয়াবিদরা।

বুধবার বিকেলের দিকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ঝড়বৃষ্টি হয়েছে ঠিকই তবে সকাল দিকে সূর্যদেবেরও দেখা মিলেছিল। এদিন বিকেল ৪টের দিক থেকে রাজ্যের একাধিক জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি শুরু হয়। এদিন বৃষ্টিতে ভিজছে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি সহ পুরুলিয়া, বীরভূম, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান। সাথে প্রায় ৮০ কিলোমিটার বেগে চলতে থাকে ঝড়ো হাওয়া। উত্তরবঙ্গের চিত্রটাও খানিকটা একইরকম ছিল। 

২০ মে রাজ্য বিধ্বংসী তান্ডবলীলা চালায় ঘূর্ণিঝড় আমফান। সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকায় ১৮০ থেকে ২০০ কিলোমিটার গতিবেগে বয়ে যায় ঝড়ো হাওয়া। খোদ কোলকাতায় ১৩০ কিমোমিটার ছাড়িয়েছিল ঝড়ের গতিবেগ। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও নিতান্ত কম নয়। গৃহহারা হওয়ার পাশাপাশি প্রাণও হারিয়েছেন বহু মানুষ। ঘূর্ণিঝড় তার বিধ্বংসী লীলা চালানোর পর বিদ্যুৎ পরিষেবা বিচ্ছিন্ন হয়েছে বহু এলাকায়। এখনও পর্যন্ত বিদ্যুৎ ও জলের পরিষেবা এখনও স্বাভাবিক হয়নি। তার পর ফের বুধবার থেকে নতুন করে ঝড়-বৃষ্টির জেরে চিন্তায় পড়েছেন রাজ্যের একাধিক জায়গার বাসিন্দারা।

 

 

 
Inform others ?
Share On Youtube
Show Buttons
Share On Youtube
Hide Buttons
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
Facebook
YouTube